সেই কন্টেইনারে ১৬২টি এলইডি টেলিভিশন পাওয়া গেছে

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি , ২০১৭ সময় ০৯:০৭ অপরাহ্ণ

মিথ্যা ঘোষণায় বন্দরে আনা সেই কন্টেইনারে সনি ব্রান্ডের ১৬২টি এলইডি টেলিভিশন পাওয়া গেছে। এছাড়া ঘোষণার অতিরিক্ত ৮৪৮ পিস টেলিফোন সেট পাওয়া যায়। বৃহস্পতিবার চালানটির শতভাগ কায়িক পরীক্ষা শেষে এ বিষয়ে নিশ্চিত হয় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের কর্মকর্তারা।

মিথ্যা ঘোষণা এবং ঘোষণার অতিরিক্ত পণ্য আমদানি করে ঢাকার পুরানা পল্টন এলাকার এমএম ইন্টারন্যাশনাল ৩০ লাখ টাকা ফাঁকি দেওয়ার চেষ্টা করেছিল আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের সহকার পরিচালক তারেক মাহমুদ বলেন, ঢাকার পুরানা পল্টন এলাকার এমএম ইন্টারন্যাশনাল সিঙ্গাপুর থেকে ৪ হাজার ৫০০ টেলিফোন সেট ঘোষণা দিয়ে চালানটি আমদানি করে। আমদানিকারকের পক্ষে গত ১১ জানুয়ারি বিল অফ এন্ট্রি(৫৪৪৭৭) দাখিল করে সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠান অর্পিতা অ্যাসোসিয়েট।

টেলিফোন সেট ঘোষণা দিয়ে উচ্চ শুল্কের পণ্য আনা হয়েছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে চালানটি আটক করা হয়। বৃহস্পতিবার কায়িক পরীক্ষায় মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে পণ্য আমদানির সত্যতা পাওয়া যায়।

তিনি জানান, ঘোষণা বহির্ভূতভাবে ১৬২ পিস এলইডি টিভি পাওয়া যায়। এরমধ্যে ৫৬ পিস ৩২ ও ১০৬ পিস ২৪ ইঞ্চি টিভি। এছাড়া ৪ হাজার ৫০০ টেলিফোন সেট আমদানির ঘোষণা দিযে নিয়ে আসে ৫ হাজার ৩৪৮ পিস। যা ঘোষণার চেয়ে ৮৪৮ পিস বেশি। এতে আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান প্রায় ৩০ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকির চেষ্টা করেছিল।

আটক চালানটি বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম বন্দরের সিএফএস শেডে শতভাগ কায়িক পরীক্ষা করা হয়। এসময় চট্টগ্রাম বন্দর, কাস্টমস কর্তৃপক্ষ, সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।


আরোও সংবাদ