সুপারনিউমারারি পদ হচ্ছে পুলিশ ক্যাডারেও

mirza imtiaz প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৪ সেপ্টেম্বর , ২০১৮ সময় ১১:২৯ পূর্বাহ্ণ

বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারের মতো এবার পুলিশ ক্যাডারেও সুপারনিউমারারি (সংখ্যাতিরিক্ত পদ সৃষ্টি) পদ সৃষ্টির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে আজ বিকালে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগে বৈঠকে বসছে এ সংক্রান্ত কমিটি। মূলত বিসিএস ২৪, ২৫ ও ২৭ ব্যাচের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারদের পদোন্নতি দিতে এ উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।
পুলিশের ২৪ ও ২৫ ব্যাচের প্রায় অর্ধশত কর্মকর্তা সোমবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এ ব্যাপারে সহায়তা চান। এ সময় মন্ত্রী জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (পুলিশ ও এনটিএমসি) ও এ সংক্রান্ত কমিটির প্রধান নুরল ইসলামকে পদ সৃষ্টির বিষয়ে একটি সমাধান বের করার নির্দেশ দেন। খবর সংশ্লিষ্ট সূত্রের।

জানা গেছে, ৪ জুলাই পুলিশ সদর দফতর থেকে সারা দেশের প্রায় ৫০০ পুলিশ কর্মকর্তার জন্য সুপারনিউমারারি পদোন্নতির প্রস্তাব করা হয়। এ সংক্রান্ত প্রস্তাব পাওয়ার পর করণীয় নির্ধারণে জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (পুলিশ ও এনটিএমসি) নুরুল ইসলামকে প্রধান করে কমিটি গঠন করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সূত্র জানায়, সুপারনিউমারারি পদটি সাধারণ প্রশাসন ক্যাডারেই দীর্ঘদিন ধরে প্রচলিত।

সোমবারের সাক্ষাতের সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালকে নিজেদের অভিভাবক সম্বোধন করে পুলিশের ২৪ ও ২৫ ব্যাচের ‘বঞ্চিত’ কর্মকর্তারা বলেন, যারা একসময় আমাদের অধীনে পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) হিসেবে কাজ করেছে, তারা এখন পদোন্নতি পেয়ে এএসপি হয়েছেন। তারা এখন আমাদের দেখলে চেয়ার ছাড়ে না।

অথচ আমরা ১২ থেকে ১৪ বছর একই পদে রয়েছি। যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও শুধু পদ না থাকায় আমাদের পদোন্নতি দেয়া হচ্ছে না। অথচ জুডিশিয়াল সার্ভিস কর্মকর্তারা ডিস্ট্রিক্ট জাজ হয়েছেন। পিছিয়ে নেই পররাষ্ট্র ও ট্যাক্স ক্যাডারে কর্মকর্তারাও। সুপারনিউমারারি পদ সৃষ্টি না করা হলে ২০ বছরেও আমরা পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি পাব না।

এর কারণ ব্যাখ্যা করে একজন কর্মকর্তা বলেন, বর্তমানে পদ খালি রয়েছে মাত্র ১২টি, অথচ আমাদের এ পদে যোগ্যতা অর্জন করে আছেন প্রায় সাড়ে ৩০০ কর্মকর্তা। ফলে সুপারনিউমারারি পদ সৃষ্টি না করা হলে এ সমস্যার সমাধান হবে না। ক্যাডার কর্মকর্তাদের মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্টি হবে।

সুপারনিউমারারি পদোন্নতি হলে সরকারের কোনো অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় হবে না। শুধু সামাজিক মর্যাদা দিতে মন্ত্রীর কাছে আকুতি জানান পুলিশ কর্মকর্তারা। তারা আরও বলেন, এটি এক মাসের মধ্যেই করতে হবে।

কারণ অক্টোবরের শুরুতেই জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হতে পারে। এটি হলে জাতীয় নির্বাচনে পুলিশ উৎসাহ-উদ্দীপনার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবে।
এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাদের বক্তব্য মনোযোগ সহকারে শোনেন। তাদের উদ্দেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এখনও ২৫তম বিসিএস প্রশাসন ক্যাডার কর্মকর্তারা উপসচিব পদে পদোন্নতি পাননি।

তাহলে আপনাদের কেন দিতে হবে? প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তাদের পদোন্নতি দেয়া হলে আপনাদের বিষয়ে বলার একটা সুযোগ সৃষ্টি হবে।

পাশাপাশি এ বিষয়ে পুলিশপ্রধানের পরামর্শ কী, তা-ও জানতে চান মন্ত্রী। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখভাল করতে এ সংক্রান্ত কমিটির প্রধান নুরুল ইসলামকে নির্দেশ দেন। এ ব্যাপারে একটি সুন্দর সমাধান বের করার পরামর্শ দেন মন্ত্রী।
পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে জানান, প্রশাসন ক্যাডারের মতো পুলিশে সুপারনিউমারারি পদোন্নতি দেয়া হলে মাঠপর্যায়ে যারা দায়িত্ব পালন করছেন, তাদের মনোবল চাঙা হবে। এ প্রক্রিয়ায় পদোন্নতি হলে কর্মকর্তারাও পদবঞ্চিত হবেন না।