সিলেট মেট্রোসিটির শেয়ার ও অর্থ ফেরতের নির্দেশ

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৭ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১০:২৩ অপরাহ্ণ

সিলেট মেট্রোসিটি সিকিউরিটিজ লিমিটেডের বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ও অর্থ ৩০ নভেম্বরের মধ্যে পরিশোধের ব্যবস্থা গ্রহণ করে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি এই ব্রোকারেজ হাউজের বোর্ড পরিচালক ও তৎকালীন নির্বাহী পরিচালক শামীম আহমদকে ৫০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তিনি পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট কোন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আর কখনও সম্পৃক্ত থাকতে পারবেন না। তার সকল বিও হিসাব পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত অবরুদ্ধ রাখারও সিদ্ধান্ত হয়েছে। মঙ্গলবার বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (এসইসি) ৫২৯তম সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়। কমিশনের সভা কক্ষে চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এম খায়রুল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বলা হয়, কমিশনের তদন্ত্ত দল কর্তৃক সিলেট মেট্রোসিটি সিকিউরিটিজ লিমিটেড নামের ব্রোকারেজ হাউজের পরিচালক শামীম আহমদের বিরুদ্ধে বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। সভায় বলা হয়, মেট্রোসিটি সিকিউরিটিজের বিরুদ্ধে আরও একটি তদন্ত প্রতিবেদন বর্তমানে প্রক্রিয়াধীন আছে। দুটি তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়বস্তু একই হওয়ায় দুটি প্রতিবেদন এক সঙ্গে করে কমিশনের এনফোর্সমেন্ট বিভাগ পরে বিষয়টি কমিশন সভায় উপস্থাপন করবে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ, বিনিয়োগকারীদের শেয়ার কেলেঙ্কারিসহ ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে এই হাউজের সাবেক নির্বাহী পরিচালক, বোর্ড পরিচালকসহ বেশ ক’জন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে দায়ের করা মামলায় পরিচালক খালেদ আহমদকে জেল হাজতেও প্রেরণ করা হয়। আত্মসাতকৃত অর্থ ফেরত ও হাউজটি খুলে দিতে বিনিয়োগকারীরা বিভিন্ন কর্মসূচিও পালন করে। বিষয়টির তদন্তের দায়িত্ব নেয় বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন। তদন্তশেষে কমিশন এসব সিদ্ধান্ত নেয়। মেট্রোসিটি এক্সচেঞ্জের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ হাসিন আহমদ মিন্টু জানিয়েছেন, এসইসি’র নির্দেশনা অনুযায়ী শিগগিরই বিষয়টির সমাধান হবে। নগরীর জিন্দাবাজারস্থ মিলেনিয়াম মার্কেটে মেট্রোসিটি সিকিউরিটিজের অবস্থান। বিনিয়োগকারীদের অর্থ আত্মসাৎ ও শেয়ার কেলেঙ্কারীর ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করে দেয়া হয়।