সিরিজ জয়ে প্রতিশোধ ও জবাব

প্রকাশ:| রবিবার, ২১ জুন , ২০১৫ সময় ১১:০১ অপরাহ্ণ

সিরিজ জয়ে প্রতিশোধ ও জবাব দিল টিম বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে নজিরবিহীন কারচুচির জবাবটা এবার বেশ পোক্ত করল বাংলাদেশ।
সাকিব
ভারতকে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৬ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ এক ম্যাচ হাতে রেখেই ২-০ তে জিতে নিল লাল সবুজের বাংলাদেশ।

জয়ের জন্য করতে হবে মাত্র ২০০ রান। সাম্প্রতিক সময়ে ফর্মের তুঙ্গে থাকা বাংলাদেশের জন্য এমন টার্গেট মামুলিই। তবে প্রতিপক্ষ ভারত বলেই দেখেশুনে আগাতে হবে। সেই কাজটিই শুরু করে দিয়েছেন তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। তবে দলীয় ৩৪ রানের মাথায় তামিম ব্যক্তিগত ১৩ রান করে সাজঘরে ফিরলে হোঁচট খায় বাংলাদেশ।

শুরুটা আক্রমণাত্মকই ছিল তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারের। তবে ৩৪ রানেই ভেঙ্গেছে প্রথম জুটি। মাত্র ১৩ রান করে সাজঘরে ফিরেছেন তামিম ইকবাল। কুলকার্নির বলে ধাওয়ানের হাতে ক্যাচ তুলে দেন তামিম।

তবে শুরুতে তামিমকে হারিয়েও পথ হারায়নি বদলে যাওয়া যাওয়া বাংলাদেশ। দ্বিতীয় উইকেটে সৌম্য সরকার ও লিটন দাসের মধ্যকার ৫২ রানের জুটিতে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় টাইগাররা। দলীয় ৮৬ রানে অশ্বিনের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে সাজঘরে ফেরেন সৌম্য সরকার।

সৌম্য সরকারের বিদায়ের একটু পর সাজঘরের পথ ধরের লিটনও। অক্ষর প্যটেলের বলে উইকেটের পেছনে ধোনিকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। দ্রুত দুই উইকেট হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়ে টাইগাররা।

৯৮ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়া বাংলাদেশকে চাপমুক্ত করেন সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম। এই দুজনের দুর্দান্ত ‍জুটিতে ধীরে ধীরে ম্যাচ ও সিরিজ জয়ের পথে এগিয়ে যাচ্ছিল টাইগাররা। তবে দলীয় ১৫২ রানের মাথায় মুশফিক রান আউট হয়ে সাজঘরে ফিরলে ছোট একটা ধাক্কা খায় টাইগার শিবির। দ্বিতীয় রানের জন্য ছুটতে গিয়ে রান আউটের ফাঁদে পড়েন মুশফিক। তবে আউট হওয়ার আগে ৩৪ বলে ৩১ রানে দারুণ এক ইনিংস উপহার দেন তিনি।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩১ ওভারে ৪ উইকেটে ১৬৩ রান। সাকিব ৩৬ ও সাব্বির ২ রানে ব্যাট করছেন।

রোববার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে আগে টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। তবে টস জয়ের সুবিধা ভালোমতো নিতে পারেনি তিনি। বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচ ৪৭ ওভারে নেমে আসে। এর মধ্যে ৪৫ ওভারে ২০০ রানে অল আউট হয় ভারত। বল হাতে আগুন ঝড়ান বাংলাদেশের তরুণ পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। তিনি একাই নেন রেকর্ড গড়া ৬টি উইকেট। নাসির ও রুবেল নেন দুটি করে উইকেট।

ভারতের হয়ে ব্যাট হাতে সর্বোচ্চ ৫৩ রান করেন ওপেনার শিখর ধাওয়ান। এছাড়া ধোনি ৪৭, রায়না ৩৪, কোহলি ২৩, জাদেজা ১৯ রান করেন।

বাংলাদেশের টার্গেট আপাতদৃষ্টিতে ২০১ রান হলেও, বৃষ্টি আইনে তা এক রান পিছিয়ে এসেছে। অর্থাৎ জয় পেতে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে ২০০ রানই।