সিগন্যাল না মানায় ব্যবসায়ীকে গুলি

প্রকাশ:| বুধবার, ১০ জুন , ২০১৫ সময় ০৯:০৮ অপরাহ্ণ

সিলেটসিলেটে ট্রাফিক সিগন্যাল অমান্য করায় মোটরসাইকেল আরোহী এক ব্যবসায়ীকে গুলি করেছে পুলিশ। আজ বুধবার দুপুর ২টায় নগরীর তালতলায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত ব্যবসায়ীর নাম বিকাশ চন্দ্র দাশ। তিনি নগরের ধোপাদীঘিরপার এলাকার শিবা ট্রেড সেন্টারের স্বত্বাধিকারী। তিনি বর্তমানে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

হাসপাতালে বিকাশ দাশের পাশের দোকানের ব্যবসায়ী রুবেল আহমদ জানান, বিকাশের শরীরের একাধিক স্থানে গুলি লেগেছে। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বিকাশের বরাত দিয়ে রুবেল জানান, বিকাশ ও তাঁর ব্যবসায়িক অংশীদার আজ ব্যবসা সংক্রান্ত কাজে মোটরসাইকেল নিয়ে বেরিয়ে ছিলেন। মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন ওই অংশীদার। দুপুর ২টার দিকে নগরীর তালতলায় যাওয়ার পর সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য মোটরসাইকেল থামানোর সিগন্যাল দেন। কিন্তু বিকাশের সাথে থাকা মোটরসাইকেল চালক দক্ষ না হওয়ায় সিগন্যালের সাথে সাথে মোটরসাইকেল থামাতে পারেননি। এই অপরাধে বিকাশের শরীরে একাধিক গুলি ছোড়ে পুলিশ।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সিলেট কোতোয়ালি থানার সহকারী কমিশনার সাজ্জাদ হোসেন বলেন, সিগন্যাল না মেনে এক কনস্টেবলকে ধাক্কা দিয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে নেওয়ায় পুলিশ একটি রাবার বুলেট ছুড়েছে। তিনি বলেন, ‘পুলিশ মনে করেছিল তাঁরা অপরাধী, তাই গুলি করেছে। ব্যবসায়ী হিসেবে চিনলে গুলি ছুড়ত না।’

তবে কনস্টেবলকে ধাক্কা দেওয়ার অভিযোগ সত্য নয় দাবি করে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকাশ চন্দ্র দাশ বলেন, ‘সড়কে জ্যাম থাকায় আমরা পুলিশকে পেরিয়ে একটু সামনে গিয়ে মোটরসাইকেল থামাতে চেয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ তার আগেই গুলি করে বসে।’

গুলির ব্যাপারে জানতে চাইলে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. আবদুস সালাম বলেন, ‘গুলি লেগেছে। এটা ঠিক। তবে এক্স-রে না করে কয়টি গুলি লেগেছে এটি বলা যাবে না।’

এদিকে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিকাশ দাশের সাথে থাকা মোটরসাইকেল চালককে আটক করেছেন পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) কবির। তিনিও ব্যবসায়ী বলে জানা গেছে। যদিও আটক ব্যক্তির নাম জানাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন তিনি।

গুলির বিষয়টি আপসে মীমাংসা করে নিতে পুলিশের পক্ষ থেকে চাপ দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিকাশের স্বজনরা।


আরোও সংবাদ