সিআরবিতে সামাজিক উদ্যোক্তা মেলার উদ্বোধন

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৫ মার্চ , ২০১৮ সময় ০৮:১৪ অপরাহ্ণ

সামাজিক উন্নয়নে তরুণ সমাজের নানামুখী কর্মকান্ডে বিত্তবানদের সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

১৫ মার্চ বৃহস্পতিবার, সকালে নগরীর সিআরবি শিরিষতলায় দুইদিনব্যাপী দেশের প্রথম সামাজিক উদ্যোক্তা মেলা-২০১৮ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সহযোগিতায় মেলার আয়োজন করেছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রচেষ্টা ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ। দেশের ইতিহাসে সামাজিক সংগঠনগুলোকে নিয়ে এ ধরণের আয়োজনকে সাধুবাদ জানিয়ে মেয়র আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রচেষ্টা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মঈন উদ্দিন আকবর। মেলার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সামাজিক উদ্যোক্তা মেলা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক বিপ্লব পার্থ। আবৃত্তি শিল্পী দিলরুবা খানমের সঞ্চালনায় মেলায় বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো.জালাল উদ্দিন, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আলী আব্বাস, সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, দ্বিতীয় লায়ন্স ভাইস প্রেসিডেন্ট লায়ন কামরুন নাহার মালেক, ২১ নম্বর জামালখান ওয়ার্ড কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন। সামাজিক অপরাধের বিরুদ্ধে তরুণ যুব সমাজকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, ‘ যুব সম্প্রদায়কে সঠিক নেতৃত্বদানের মধ্য দিয়ে সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তনের মাধ্যমে দেশের উন্নয়নে অবদান রাখতে হবে। যৌবনদীপ্ত তরুণ সমাজ হচ্ছে তারুণ্যের অহংকার। তারা যদি এগিয়ে না আসে তাহলে দেশের কাংখিত উন্নয়ন সম্ভব নয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ অথনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। এ ধারা অব্যাহত রাখতে হলে জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা রুখতে হবে। তরুণ প্র জন্ম আমাদের দেশের সম্পদ, তাদেরকে সঠিকভাবে গড়ে তুলতে পরিচর্যা ও উদ্বুদ্ধ করতে হবে। তাদের সম্ভাবনাকে ইতিবাচক পরিবর্তনের কাজে লাগাতে হবে। ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত সমাজ গঠনে, সমতার ভিত্তিতে সম্পদ বন্টন ও বৈষম্য নিরসনে সকলে একযোগে কাজ করে গেলে সমাজে অন্তর্ভূক্তিমূলক সমতা প্রতিষ্ঠিত হবে। একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ গড়তে পরিবর্তনশীল পৃথিবীর সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যেতে হবে।’মেয়র বলেন, ‘আমরা সামাজিক জীব। সমাজের প্রতি আমাদের সকলের দায়িত্ব রয়েছে। শুধু নিজের চাহিদা মিটিয়ে সুখে শান্তিতে থাকলে প্রকৃত সুখ পাওয়া যায় না। সত্যিকারের সুখ পেতে হলে অন্যদের সঙ্গে সম্পর্ক থাকতে হবে। মানুষকে একা থাকার জন্য সৃষ্টি করা হয়নি অর্থাৎ আমরা সহজাতভাবেই দলবদ্ধ হয়ে বাস করতে চাই আর তাই আমরা যদি নিজেদেরকে আলাদা রাখি বা সবসময় নিজের চিন্তা করি, তাহলে আমরা সত্যিকারের সুখী হতে পারব না।
যদি আমরা অনুভব করি যে ‘অন্যেরা আমাদেরকে ভালবাসে এবং আমরাও যদি অন্যদেরকে ভালবাসি,অন্যের বিপদে এগিয়ে আসি তাহলেই আমরা সুখী হতে পারব।’
দুইদিনব্যাপী মেলায় ৫০টিরও অধিক সংগঠন অংশগ্রহণ করেছে। এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাও যোগ দেন। মেলায় রয়েছে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয়, ডায়বেটিক ও ওজন নির্ণয়, বিনামূল্যে খতনা, চক্ষুসেবা সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ, শিক্ষা উপরকরণ বিতরণসহ নানা আয়োজন। স্বেচ্ছাসেবক ও লিডারদেরকে আরো দক্ষ ও কাজের গতিশীলতা বৃদ্ধি এবং মানবসেবার প্রতি মানুষের আগ্রহ সৃষ্টি করার লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত হয়েছে দেশসেরা প্রশিক্ষকদের মাধ্যমে বিশেষ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা। এর মধ্যে থাকছে লিডারশীপ ট্রেনিং, সোশ্যাল বিজনেস ট্রেনিং, ভলান্টিয়ারিজম ট্রেনিং, অর্গানাইজেশনাল সেটাপ ট্রেনিং এবং মোটিভেশনাল স্পিচ। সকাল ৯টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চলবে মেলা।


আরোও সংবাদ