সালিসের ভিডিও হচ্ছে সন্দেহ মোবাইল পুকুরে ফেলে দিলেন ওসি

প্রকাশ:| শনিবার, ২ এপ্রিল , ২০১৬ সময় ০৯:১৮ অপরাহ্ণ

আনোয়ারা উপজেলাআনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) বিরুদ্ধে ১৭ হাজার টাকা দামের মোবাইল সেট পুকুরে ছুড়ে ফেলার অভিযোগ করেছেন স্থানীয় যুবক মহিউদ্দিন চৌধুরী অসিম (৩৬)।

তার অভিযোগ, উপজেলার হাইলধর ইউনিয়নের দক্ষিণ ইছাখালী গ্রামে শনিবার দুপুরে একটি সালিসি বৈঠকের ভিডিওটিত্র ধারণ করা হয়েছে এমন সন্দেহ থেকে ওসি এ কাণ্ড ঘটিয়েছেন।

মহিউদ্দিন চৌধুরী অসিম বলেন, দক্ষিণ ইছাখালীর সিকদার বাড়িতে জনৈক বদিউল আলম ও আবদুল জব্বার গংয়ের সালিসি বৈঠক চলাকালে কৌতূহলবশত আমিও গিয়েছিলাম। সালিস চলাকালে ওসি আবদুল লতিফসহ কয়েকজন মুরুব্বি চেয়ারে বসা ছিলেন। আমি কিছুটা তফাতে দাঁড়িয়ে ছিলাম। আমার হাতে মোবাইল ছিল। কিছুক্ষণ পর ওসি সাহেব ভিডিও করছি কিনা জানতে চান। আমি বললাম, ভিডিও করছি না। এই দেখুন। তখন উনি মোবাইলটা নিয়ে মাটিতে ফেলেন। পা দিয়ে আঘাত করে দুমড়ে-মুচড়ে পাশের পুকুরে ছুড়ে মারেন।

মহিউদ্দিন জানান, মোবাইল ফোনটি ১৭ ‍হাজার টাকায় কিনেছিলেন তিনি। ওই ফোনে আত্মীয়-স্বজনের অনেক নাম্বার, জরুরি ডকুমেন্ট, ছবি সেভ করা ছিল।

স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, যমুনা টিভির ৩৬০ ডিগ্রি অনুষ্ঠানের দলটি আনোয়ারা থানায় নাজেহাল হওয়ার পর থেকে ওসি ধরাকে সরা জ্ঞান করছেন। যখন যাকে খুশি লাঞ্ছিত করছেন।

এ ব্যাপারে ওসি আবদুল লতিফের কাছে জানতে চাইলে বলেন, আমি কারও মোবাইল পুকুরে ছুড়ে মারিনি।

তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করা হচ্ছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, যেহেতু আমি কারও মোবাইল পুকুরে ফেলিনি। তাই মিথ্যা অভিযোগ করছে এটা বলার অপেক্ষা রাখে না।


আরোও সংবাদ