সালিশি বৈঠকে দু’পক্ষে মারামারি আহত ১, আটক ৮

প্রকাশ:| বুধবার, ১০ ফেব্রুয়ারি , ২০১৬ সময় ০৮:১৮ অপরাহ্ণ

আনোয়ারা উপজেলাচট্টগ্রামে একটি থানার ভেতরে সালিশ বৈঠকে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে মো. শাকিল (৪০) নামে একজন গুরুতর আহত হয়েছেন। পুলিশ আটজনকে আটক করেছে।

বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫টার দিকে চট্টগ্রামের আনোয়ারা থানায় এ ঘটনা ঘটেছে।

শাকিলের চাচাত ভাই জাহেদুল হক অভিযোগ করেছেন, মারামারি থামাতে গিয়ে এক পুলিশ সদস্য অস্ত্র দিয়ে শাকিলের মাথায় আঘাত করেন। এতে তার মাথায়ে ‍মারাত্মক জখম হয়েছে।

অভিযোগ অস্বীকার করে আনোয়ারা থানার ওসি মো.আব্দুল লতিফ বলেন, তারা নিজেরাই মারামারি করে আহত হয়েছে। পুলিশ কাউকে আঘাত করেনি। ওসি জানান, জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে পুলিশের মধ্যস্থতায় আনোয়ারা উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের চাতরি গ্রামের দু’পক্ষ সমঝোতা বৈঠকে বসেছিল। বৈঠকের এক পর্যায়ে কথা কাটাকাটি থেকে মারামারি বেঁধে যায়।

এসময় পুলিশ দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। মারামারিতে জড়িত আটজনকে আটক করা হয়। আহত হওয়ায় শাকিলকে পুলিশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠায়। পুলিশ মারামারি করেনি। পুলিশ কাউকে লাঠিচার্জও করেনি। এজন্য পুলিশের অস্ত্রের আঘাতে কারও আহত হওয়ার অভিযোগ মিথ্যা। ’ বলেন ওসি।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে কর্তব্যরত নায়েক পংকজ বড়ুয়া বলেন, সালিশ বৈঠকে মারামারিতে আহত শাকিলকে ২৮ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। তার মাথায় অস্ত্রোপচার হয়েছে।

শাকিল চৌমুহনী ইউনিয়নের আট নম্বর চাতরি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলে জানিয়েছেন তার চাচাত ভাই জাহেদুল হক।