সার্বজনীন দুর্গোৎসবের উদ্বোধন

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১০ অক্টোবর , ২০১৩ সময় ১০:১৯ অপরাহ্ণ

স‍ার্বজনীন দুর্গোৎসবের উদ্বোধনচট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পূজা উদযাপন পরিষদ আয়োজিত ৫ দিন ব্যাপী স‍ার্বজনীন দুর্গোৎসবের উদ্বোধন করেছেন সিটি মেয়র এম মনজুর আলম।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জামাল খান কুসুম কুমারী সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে চসিক পূজা উদযাপন পরিষদের আহবায়ক প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ফিতা কেটে দুর্গাপূজা মন্ডপের উদ্বোধন করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মনজুর আলম বলেন, প্রতিটি ধর্মের মূল মর্মবাণী হচ্ছে শান্তি ও মানবতার জয়গান। মানবতাকে অগ্রাধিকার দিয়ে মূল্যায়ন করলেই ধরনীতে শান্তি অবধারিত।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য পাদপীঠ চট্টগ্রামের অতীত ঐতিহ্য ধরে রাখতে সকলের সহযোগিতা কামনা করে তিনি বলেন, শারদীয় দুর্গোৎসব এবং ঈদুল আযহা ভ্রাতৃত্ব, সম্প্রীতি ও সৌহার্দময় পরিবেশে পালিত হবে।

শারদীয়া দুর্গোৎসব চলাকালে পূজা মন্ডপে জেনারেটর, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা, আলোকসজ্জা, পানীয়-জলের ব্যবস্থা এবং পূজার্থী ও দর্শনার্থীদের নিরাপত্তাসহ বিজয়া দশমীর দিন পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে শান্তিপূর্ণ ভাবে প্রতিমা বিসর্জনের সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান মেয়র।

মেয়র মন্ডপে পুজা চলাকালে ভক্ত, পুজারী ও দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে শান্তি শৃংখলা রক্ষায় ওয়ার্ড কাউন্সিলর, পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দ, স্বেচ্ছাসেবকসহ সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা কামনা করেন।

পরে মেয়র চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পূজা উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে শিক্ষা সহায়তায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত তিন মেধাবী শিার্থী যথাক্রমে ঝুমুর নাথকে ২ লাখ, দেবী ভট্টাচার্যকে ১ লাখ ও মিশু দে’র হাতে ৬০ হাজার টাকার চেক তুলে দেন।

এদিকে শারদীয়া দুর্গোৎসবের মহাষষ্টীর উদ্বোধনী দিনে নগরীর উত্তর কাট্টলীস্থ অন্বেষা পূজা উদযাপন পরিষদ আয়োজিত পূজা মন্ডপ, পূর্ব মাদারবাড়ীস্থ উদয় যুব সংঘ, জেএমসেন হলস্থ মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদ ও এনায়েত বাজার হাজারী পুকুর পাড়ের মহিলা সংঘ এবং বান্ডেল রোডস্থ হরিজন সমাজ যুব কল্যাণ সংঘের পূজা মন্ডপসহ নগরীর অন্যান্য মন্ডপসমূহ পরিদর্শন করেন।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিজয় কুমার চৌধুরী কিষানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে চট্টগ্রামে রাশিয়ান কনসাল জেনারেল ওলেগ পি বয়কো, চট্টগ্রামে রাশিয়ার ফেডারেশনের সেক্রেটারী মিসেস আইদা এন আবুবাকিরওভা, কাউন্সিলর জহরলাল হাজারী, এম এ মালেক, নিয়াজ মো. খান, চসিক’র সাবেক সচিব মো.সামসুদ্দোহা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা আধ্যাপক মুহম্মদ শহিদুল্লাহ, প্রধান হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা নারায়ন চন্দ্রপাল,মেয়রের একান্ত সচিব মন্জুরুল ইসলাম প্রমূখ ।