সার্কিট বেঞ্চ স্থাপনের দাবির সঙ্গে ‘একমত’ পোষণ করেছেন রাষ্ট্রপতি

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২২ ডিসেম্বর , ২০১৬ সময় ০৯:২২ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামে হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ স্থাপনের দাবির সঙ্গে ‘একমত’ পোষণ করেছেন রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ।  এই বেঞ্চ স্থাপনে রাষ্ট্রপতি ব্যক্তিগতভাবে উদ্যোগ নেবেন বলেও চট্টগ্রামের আইনজীবী সমিতির নেতাদের জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টায় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বঙ্গবভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন জেলা আইনজীবী সমিতির ৯ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল।  এতে নেতৃত্ব দেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট কফিল উদ্দিন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক এস জাহেদ বীরু।

বঙ্গভবন থেকে বেরিয়ে টেলিফোনে এস জাহেদ বীরু বাংলানিউজকে বলেন, আমরা রাষ্ট্রপতির কাছে চট্টগ্রামে হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ স্থাপনের বিষয়টি তুলে ধরেছি।  রাষ্ট্রপতি বলেছেন তিনি এই দাবির সঙ্গে একমত।  রাষ্ট্রপতি নিজেই বলেছেন, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, টেকনাফ, উত্তরাঞ্চলের লোকজনকে মামলার জন্য ঢাকায় হাইকোর্টে আসতে অনেক কষ্ট হয়।  এটা অমানবিক।  প্রধানমন্ত্রী এবং প্রধান বিচারপতি যেহেতু এই দাবির প্রতি আন্তরিক তাই রাষ্ট্রপতি ব্যক্তিগতভাবে এই বিষয়ে উদ্যোগ নেবেন।

এদিকে রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক ও সাবেক পিপি অ্যাডভোকেট আবুল হাশেম।

তিনি বলেন, মহামান্য রাষ্ট্রপতি চট্টগ্রামের সকল আইনজীবী এবং জনগণের হৃদয়ের ভাষা বুঝতে পেরেছেন।  রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পর্যায়ের এই স্বীকৃতিতে আমরা আপ্লুত।  আমরা অবিলম্বে এই বিষয়ে উদ্যোগ নেয়ার জন্য রাষ্ট্রপতিকে বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতে আইনজীবী সমিতির নেতারা নগরীর পাঁচলাইশ থেকে শ্রম আদালত এবং আগ্রাবাদ থেকে বিদ্যুৎ আদালত চট্টগ্রাম আদালত ভবনে স্থানান্তরের উদ্যোগ নেয়ার জন্য রাষ্ট্রপতিকে অনুরোধ করেন।  রাষ্ট্রপতি বিষয়টি নিয়ে আইন মন্ত্রণালয়ে কথা বলার আশ্বাস দেন বলে জানিয়েছেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এস জাহেদ বীরু।

এর আগে গত ১ ডিসেম্বর সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির এক অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম এবং সিলেটে হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ স্থাপনের ঘোষণা দেন প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা।

৩ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে জানুয়ারির মধ্যে এই ঘোষণা বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানায় হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ বাস্তবায়ন পরিষদ।

১৯৮২ সালের ১১ মে চট্টগ্রামে হাই কোর্টের একটি স্থায়ী বেঞ্চ প্রতিষ্ঠিত হয়। এইচ এম এরশাদের সামরিক শাসনামলে ১৯৮৬ সালের ১৭ জুন সামরিক ফরমানের ৪ (এ) ধারা সংশোধন করে স্থায়ী বেঞ্চকে সার্কিট বেঞ্চ (অস্থায়ী) করা হয়।

সংবিধান পুনরুজ্জীবনের পর সংবিধানের অনুচ্ছেদ-১০০ অনুসারে সার্কিট বেঞ্চের বিধান থাকায় চট্টগ্রামসহ দেশের ছয়টি সার্কিট বেঞ্চ বহাল থেকে যায়। পরে সংবিধানের অষ্টম সংশোধনীর ২(ক) অনুচ্ছেদ অনুসারে, ছয়টি সার্কিট বেঞ্চই আবার স্থায়ী বেঞ্চের মর্যাদা পায়।

১৯৮৯ সালের ২ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ হাই কোর্ট বিকেন্দ্রীকরণ সংক্রান্ত অষ্টম সংশোধনীর ২(ক) অনুচ্ছেদটি বাতিলের আদেশ দিলে চট্টগ্রাম, রংপুর, যশোর, বরিশাল, কুমিল্লা ও সিলেটের হাই কোর্ট বেঞ্চগুলো ঢাকায় ফিরিয়ে নেওয়া হয়।

এরপর থেকে সার্কিট বেঞ্চ ফিরিয়ে দেয়ার দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন চট্টগ্রামের আইনজীবীরা।  বছরখানেক আগে সাবেক জেলা পিপি অ্যাডভোকেট আবুল হাশেম হাইকোর্টের সার্কিট বেঞ্চ বাস্তবায়ন পরিষদ গঠন করে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে আন্দোলন জোরালো করে তুলতে সক্ষম হন।


আরোও সংবাদ