সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী কনভেনশন সফল করতে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময়

প্রকাশ:| রবিবার, ৮ ডিসেম্বর , ২০১৩ সময় ০৯:৪৭ অপরাহ্ণ

যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করতে কতিপয় রাজনৈতিক দল
আন্দোলনের নামে পৈশাচিকভাবে মানুষ হত্যায় মেতেছে
সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী কনভেনশন
প্রেস রিলিজ>>জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধারা বলেছেন, তথাকথিত আন্দোলনের নামে দেশজুড়ে যারা নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে তারা যুদ্ধাপরাধীদের দোসর। মূলত যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করতে এবং বিচারককে ভুলূণ্ঠিত করতে পরিকল্পনা করেই কতিপয় রাজনৈতিক দল জনসমর্থনহীন আন্দোলনের নামে পৈশাচিকভাবে মানুষ হত্যায় মেতেছে।
বক্তারা আরো বলেন, আন্দোলনের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে ’৭১-এর অগ্নিমন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে ‘জাগরণ’ ঘটাতে হবে। এই জাগরণের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্বদরবারে প্রতিষ্ঠিত করতে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষশক্তিকে পুনরায় ক্ষমতায় আনতে মুক্তিযোদ্ধাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে।
আগামী ২০ ডিসেম্বর শুক্রবার চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী কনভেনশনকে সফল করার লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বিভিন্ন প্রতিনিধিত্বশীল সংগঠন-সংগঠকদের সাথে পৃথকভাবে ধারাবাহিক মতবিনিময়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চট্টগ্রামের মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি পরিষদের মতবিনিময়কালে বক্তারা উপর্যুক্ত কথাগুলি বলেন।
একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি জেলা উপদেষ্টা মুক্তিযুদ্ধ গবেষক ডা. মাহফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত বাঙালির পরিচালনায় গতকাল ৮ ডিসেম্বর রবিবার নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় সূচনা বক্তব্য দেন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. সেকান্দর চৌধুরী।
অন্যদের মধ্যে মতামত ব্যক্ত করেন মুক্তিযোদ্ধা মো. সাহাব উদ্দীন, মাহবুবুল আলম চৌধুরী, এ.কে.এম সরোয়ার কামাল, জামাল উল্লাহ, এসএম ইলিয়াছ চৌধুরী, মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, বদিউজ্জামান, এ.বি.এম. ছিদ্দিকুর রহমান, মোহাম্মদ হারিছ, মোহাম্মদ ফাহিম উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা এ.কে.এম আলাউদ্দিন, জয়নূল আবেদিন খোকা, প্রফেসর ইদ্রিস আলী, সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, নুরুল আলম, বোরহান উদ্দিন, এ.এইচ.এম জিলানী চৌধুরী, ভারত চন্দ্র বড়–য়া, হাবিব উল্লাহ বাহার, আবুল বশর, মাহবুবুল আলম, যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইসহাক, এনায়েত উর রহমান, তোবারক হোসেন, বনগোপাল দাশ, নুরুল আলম, রনু বড়–য়া, সার্জেন্ট অব. মোহাম্মদ এনায়েত উল্লাহ, মহিবুল মাওলা, এম.এ বশর, উদয়ন নাগ, মোহাং রফিকুল আলম, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি পরিষদের সদস্য সচিব ও জেলা নির্মূল কমিটি আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সীমান্ত তালুকদার, যুগ্ম সচিব অলিদ চৌধুরী, নির্মূল কমিটি জেলা নেতা স্বপন সেন, আবুল হাসনাত মো. বেলাল, মো. মহিউদ্দিন সোহেল, চবি শিক্ষক মো. আহাসানুল কবীর পলাশ, সৈয়দ মো. তৌহিদুল ইসলাম, এস.এ.এম. জিয়াউল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান অধ্যাপক রুনু মজুমদার, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সুরজিত দত্ত সৈকত প্রমুখ।
সভায় বক্তারা আগামী ২০ ডিসেম্বর সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী কনভেশনে মুক্তিযোদ্ধাদের সক্রিয় ও সাহসী ভূমিকা রাখার আহবান জানালে মুক্তিযোদ্ধারা কনভেশনকে সফল করতে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন এবং ওইদিন মুক্তিযোদ্ধাদের বিশাল উপস্থিতির বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
এদিকে, একই বিষয়ে চট্টগ্রামের সংস্কৃতিকর্মী, সংস্কৃতিসেবী, সংস্কৃতি সংগঠন-সংগঠকদের সাথে আজ ৯ ডিসেম্বর সোমবার বিকেল ৫টায় চেরাগী পাহাড়ের মোমিন রোডস্থ লুসাই ভবনের ৩য় তলায় চট্টগ্রাম একাডেমি মিলনায়তনে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় সর্বস্তরের সংস্কৃতিকর্মীদের যথাসময়ে উপস্থিত হওয়ার জন্য সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি পরিষদের সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট সীমান্ত তালুকদার অনুরোধ জানিয়েছেন।


আরোও সংবাদ