সানোয়ার রফিকের সঙ্গে কথা বলবে আকসু

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১১ জুন , ২০১৩ সময় ০৫:১২ অপরাহ্ণ

খোঁড়ার আগেই তো বেরিয়ে এসেছে কেঁচো। আশরাফুল নিজেই স্বীকার করেছেন তিনি বিপিএলে ম্যাচ ফিক্সিং করেছেন। কেঁচোর সঙ্গে কি তাহলে এবার সাপও বেরিয়ে আসছে? পঞ্চমবারের মতো ঢাকায় আকসুর দল আসায় এ প্রশ্ন আরও গাঢ় হয়েছে। যার সঠিক উত্তর অবশ্য দিতে পারছেন না বিসিবির কেউ। ‘স্বাধীনভাবে তদন্ত করছে আকসু। তাদের এ তদন্তে বিসিবির কোনো হস্তক্ষেপ নেই। তাদের সে তদন্তের স্বার্থেই হয়তো ফের ঢাকায় এসেছে আকসুর দল। তবে তদন্ত শেষ হয়েছে কি-না, তা এখনও আমাদের জানা নেই। তাদের সে রিপোর্টের অপেক্ষা করা ছাড়াও বিসিবির কিছু করার নেই।’ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন সুজনের কথাতেও তদন্ত দীর্ঘায়িত হওয়ার ইঙ্গিত রয়েছে। বিশ্বস্ত সূত্র জানাচ্ছে, আকসুর দল এবার এসেছে ঢাকা গ্গ্ন্যাডিয়েটরসের কিছু কর্মকর্তার ফোন কললিস্ট চেক করতে। সে সঙ্গে তারা গ্গ্ন্যাডিয়েটরসের স্পিন বোলিং কোচ মোহাম্মদ রফিক এবং ম্যানেজার সানোয়ার হোসেনের ব্যাপারে আরও বিস্তারিত জানতে। জাতীয় দলের সাবেক এ দুই ক্রিকেটারের সঙ্গে আকসু কথা বলতে চায়। কেননা, আশরাফুলের মুখ দিয়েই মোহাম্মদ রফিকের সংশ্লিষ্টতার কথা বেরিয়ে এসেছে এবং রফিকের মুখ দিয়ে পরে মিডিয়ায় সানোয়ার হোসেনের নাম এসেছে। রফিক দাবি করেন, গ্গ্ন্যাডিয়েটরসের ম্যানেজার সানোয়ারের রুমেই বিদেশি এক লোক ম্যাচ ফিক্সিংয়ের ষড়যন্ত্র করেছে। মিডিয়ায় এ খবর ফলাও করে প্রচার হওয়ার পরই তাদের দু’জনের কললিস্ট ধরে কথা বলতে চাচ্ছে প্রতিনিধি দলটি।
যদিও কাল পর্যন্ত সানোয়ার হোসেনের সঙ্গে এ ব্যাপারে কারও কথা হয়নি। ‘আমি দেশের বাইরে ছিলাম, বিকেলেই ঢাকা ফিরেছি। আকসু থেকে কোনো ধরনের কেউ আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেনি। তবে যদি তদন্তে তারা আমার সহযোগিতা চায়, তাহলে নিশ্চয় তা দেব।’ সানোয়ার হোসেনও মনে করেন সুষ্ঠু তদন্ত হওয়া দরকার। কেননা, এখনও এ ব্যাপারটি নিয়ে একে অন্যের বিপক্ষেই কাদা ছোড়াছুড়ি করছে। সানোয়ার তার সহযোগিতার কথা জানালেও মোহাম্মদ রফিকের ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি। গতকাল বিকেল থেকেই বন্ধ ছিল তার সেল ফোন। এর আগে বিসিবিপ্রধান নাজমুল হাসান বলেছিলেন, তদন্তে আর একজনের সাক্ষাৎকার নেওয়ার বাকি আছে আকসুর, তবে তার সাক্ষাৎকার নেওয়ার পর যদি আরও তদন্ত করার প্রয়োজন হয়, তাহলে সেটা নিতে পারে আকসু। আপাতত আকসু সদস্যের ঢাকায় আসার পর বিসিবি কর্মকর্তারা মনে করছেন তদন্ত দীর্ঘায়িতই হচ্ছে। যদিও এবার আকসুর প্রতিনিধি দলটির সঙ্গে বিসিবিপ্রধানের দেখা হওয়ার সম্ভাবনা কম। কেননা, আজ রাতে মালয়েশিয়া থেকে দেশে ফেরার কথা বিসিবিপ্রধানের। তার আগেই অবশ্য ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে আকসু প্রতিনিধি দলের।
কিন্তু বিপিএলের তদন্ত নিয়ে একের পর এক সাবেক ক্রিকেটারদের নাম মিডিয়াতে চলে আসায় বিব্রত বিসিবি। বোর্ড চাইছে দ্রুতই যেন আকসু তাদের চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়ে দেয়। ‘তদন্ত প্রতিবেদন যত দ্রুত দেয়, ততই ভালো। কেননা, এটা না দেওয়া পর্যন্ত প্রতিদিনই মিডিয়াতে নতুন নতুন নাম আসছে। একটি তদন্তে অনেক নাম আসতেই পারে। কিন্তু সেগুলো প্রমাণ না হলে সে ক্রিকেটারের জন্য মানহানিকর।’ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বোর্ড কর্মকর্তা মনে করেন, চূড়ান্ত তদন্ত রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরই শুধু একজনকে দোষী বলে পত্রিকায় ছবি ছাপানো যায়।


আরোও সংবাদ