সাইফ পাওয়ার টেক মাফিয়া গ্রুপের সদস্য-মহিউদ্দিন চৌধুরী

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৫ আগস্ট , ২০১৪ সময় ০৬:২৭ অপরাহ্ণ

বেসরকারি অপারেটর সাইফ পাওয়ার টেককে মাফিয়া গ্রুপের সদস্য হিসেবে উল্লেখ করে প্রতিষ্ঠানটিকে কালো তালিকাভুক্ত করার দাবি জানিয়েছেন সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী।

মহিউদ্দিন চৌধুরীমঙ্গলবার দুপুরে ডক বন্দর শ্রমিক কর্মচারী পরিষদ আয়োজিত এক মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মহিউদ্দিন এ দাবি জানান।

মহিউদ্দিন বলেন, চক্রান্তকারী মাফিয়া গ্রুপের সদস্য সাইফ পাওয়ার টেক ওয়ান ইলেভেনের সুযোগে বন্দরে ঢুকেছে। তারা পুরো বন্দরকে ছলে বলে কৌশলে কুক্ষিগত করতে চায়। সাইফ পাওয়ার টেকের মত মাফিয়া গ্রুপ দশ ট্রাক অস্ত্র এনেছিল। তাদের হাতে বন্দর গেলে ‌আবারও অস্ত্রের চালান আসবে, দেশে হানাহানি বৃদ্ধি পাবে।

মহিউদ্দিন বলেন, নিউমুরিং কনটেইনার টার্মিনাল (এনসিটি) বন্দর নিজে তৈরি করেছে। বন্দর কর্তৃপক্ষ নিজেরা এটি পরিচালনা না করে সাইফ পাওয়ার টেককে দেয়ার ব্যবস্থা করছে। চট্টগ্রাম বন্দর দেশের সম্পদ, জাতির সম্পদ। এ বন্দরের উপর আঘাত আসলে আমরা চুপ করে থাকতে পারিনা।

তিনি বলেন, এনসিটিতে পণ্য উঠানামার জন্য যন্ত্রাংশ বন্দরের টাকায় কিনতে হবে। বন্দরে যোগ্য লোকের অভাব নেই। তাদের দিয়ে এনসিটি পরিচালনা করতে হবে। সাইফ পাওয়ার টেককে এককভাবে এনসিটি পরিচালনা করতে দেয়া যাবেনা।

মহিউদ্দিন বলেন, সাইফ পাওয়ার টেক বন্দরের একশ্রেণীর কর্মকর্তাদের হাত করে তাদের বিদেশে পাঠিয়ে ভাল ভাল হোটেলে রাখছে। সেসব কর্মকর্তাদের মাধ্যমে সাইফ পাওয়ার টেক বন্দরকে জিম্মি করার চক্রান্ত করছে।

তিনি বলেন, সাইফ পাওয়ার টেক বন্দরে ঢোকার পর থেকে অন্যায়ভাবে শ্রমিকদের চাকুরিচ্যুত করছে। অনেক দক্ষ শ্রমিক বেকার হয়ে আজ পথে পথে ঘুরছে। শ্রমিকদের সঙ্গে সাইফ পাওয়ার টেক বিমাতাসুলভ আচরণ করছে।

তিনি বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বন্দরকে ঘিরে মাফিয়া চক্র সক্রিয় থাকে। তারা বিভিন্নভাবে বন্দরকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিতে চায়। সাইফ পাওয়ার টেকও বন্দরকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বন্দরকে অবৈধ স্মাগলিংয়ের স্বর্গরাজ্য বানাতে চায়।

সাইফ পাওয়ার টেককে ঠেকাতে জনমত সৃষ্টি করে ধারাবাহিক আন্দোলন কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে বলে জানান মহিউদ্দিন।

নগর আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল আহাদের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক একেএম তফাজ্জল হোসেন, ডক বন্দর শ্রমিক কর্মচারী পরিষদের কার্যকরী সভাপতি হাজী মমতাজ উদ্দিন, মার্চেণ্ট শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো.নওশাদ, ডক বন্দর শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি এসকান্দর মিয়া, বন্দর শ্রমিক নেতা সাজ্জাদুর রহমান, সিম্যান্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল অদুদ, ষ্টিভিডোরিং এসোসিয়েশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজী মো.নাছের।

উল্লেখ্য এনসিটি পরিচালনার দায়িত্ব সাইফ পাওয়ার টেককে দেয়ার বিরোধিতা করে দীর্ঘদিন ধরে বক্তব্য-বিবৃতি দিচ্ছেন এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। বন্দর ব্যবহারকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও বন্দর কর্তৃপক্ষের এ সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছে।