সাংবাদিক হাউজিং ৪ কর্মকর্তার বহিস্কারাদেশ হাইকোর্টে বহাল

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| সোমবার, ১২ মার্চ , ২০১৮ সময় ০১:০২ পূর্বাহ্ণ

অনিয়ম-দুনীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে চট্টগ্রাম সাংবাদিক কো-অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটি লিঃ এর সাবেক সভাপতি মাহবুব-উল-আলম, সম্পাদক নিজাম উদ্দিন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ শহীদ-উল-আলম ও সদস্য নির্মল চন্দ্র দাস বহিস্কারাদেশ বহাল রেখেছে হাইকোর্ট।

আজ রবিবার বিচারপতি জুবায়ের রহমান ও বিচারপতি জনাব মোহাম্মদ ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ এই আদেশ দেন এবং রুলনিশি জারী করেন।

সাংবাদিক কো-অপারেটিভ হাউসিং সোসাইটি লিঃ এর পক্ষে মামলা পরিচালনাকারী এডভোকেট মোঃ নুরুল করিম বিপ্লব টেলিফোনে আলাপকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলা সুত্রে জানাগেছে, সমিতির শেরশাহ সাংবাদিক হাউজিং এলাকার লে-আউট অনুযায়ী কবরস্থান ও মসজিদের জন্য সংরক্ষিত জায়গা বেআইনি ভাবে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অবৈধ পন্থায় সমিতির তৎকালীন সম্পাদক নিজাম উদ্দিন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ্য শহীদ উল আলম, সদস্য নির্মল চন্দ্র দাস নিজেদের স্ত্রীর নামে বরাদ্দ নেন। অবৈধভাবে প্লট বরাদ্দ দেয়ার অভিযোগে চট্টগ্রাম সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটি লি. এর বার্ষিক সাধারণ সভায় সমিতির তৎকালীন সভাপতি মাহবুব উল আলম, সম্পাদক নিজাম উদ্দিন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ শহীদ উল আলম এবং সদস্য নির্মল চন্দ্র দাসকে বহিস্কার করা হয়।

সমিতির এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অভিযুক্তরা গত বছর জেলা সমবায় কার্যালয়ে একটি বিরোধ মামলা দায়ের করেন। এ প্রেক্ষিতে জেলা সমবায় কার্যালয় চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারী বেআইনি ভাবে অভিযুক্তদের সদস্য পদ পুর্নবহালের আদেশ দেন। জেলা সমবায় কার্যালয়ের এই আদেশ চ্যালেঞ্জ করে চট্টগ্রাম সাংবাদিক কো-অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটি লি. এর পক্ষ থেকে সম্পাদক হাসান ফেরদৌস মহামান্য সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনে একটি রিট পিটিশন দাখিল করেন।

এ প্রেক্ষিতে আজ রবিবার বিচারপতি জনাব জুবায়ের রহমান ও বিচারপতি জনাব মোহাম্মদ ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ শুনানী অনুষ্ঠিত হয়। শুনানী শেষে আদালত জেলা সমবায় কার্যালয়ের আদেশ স্থগিত করে রুলনিশি জারী করেন।

আদালতের এই আদেশের মধ্য দিয়ে মাহবুব-উল-আলম, নিজাম উদ্দিন আহমেদ, শহীদ উল-আলম ও নির্মল চন্দ্র দাশ এর বিরুদ্ধে সোসাইটির সর্বসম্মতভাবে গৃহীত বহিস্কারাদেশ পুনর্বহাল হল।

আদালতে চট্টগ্রাম সাংবাদিক কো-অপারেটিভ হাউসিং সোসাইটি লিঃ এর পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন এডভোকেট মোঃ নুরুল করিম বিপ্লব ও ব্যারিস্টার তীর্থ সলিল পাল।