সাংবাদিকের বাড়ির ৫০ লক্ষ টাকা মূল্যের গাছ কেটে নিল সন্ত্রাসীরা

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৩ ফেব্রুয়ারি , ২০১৫ সময় ১১:০৫ অপরাহ্ণ

রাঙামাটি প্রতিনিধিঃ অবরোধ ও হাতালের সুযোগে খাগড়াছড়ির লক্ষ্মীছড়িতে সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। উপজেলার ডিপি নোয়া পাড়ার মানিকছড়ি এলাকায় একদল সন্ত্রাসী দৈনিক জনকণ্ঠের রাঙামাটি প্রতিনিধি মোহাম্মদ আলীর নিজের ও পৈত্রিক ভুমি থেকে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা মূল্যের ১০ হাজার গাছের চারা কেটে নিয়ে গেছে। মঙ্গলবার দিনে দুপুরে এ ঘটনা ঘটায় সন্ত্রাসীরা।
সাংবাদিক মোহাম্মদ আলী জানান, ১৫/২০ বছর আগে তিনি রাঙামাটি জেলার সীমান্তবর্তী খাগড়াছড়ির লক্ষীছড়ি উপজেলার ডিপি নোয়া পাড়ার মানিকছড়ি এলাকায় ১০একর জাগায় এই গাছের চারা রোপন করেন। জায়গাটি দূর্গম হওয়ায় সন্ত্রাসীরা এই সুযোগ নিচ্ছে বার বার।
তিনি অভিযোগ করেন, সুরুজ মিয়া, জাহেদ, মোশারফ, জাকির ও সালামের নেতৃত্বে ২০/২৫ জনের একটি সন্ত্রসী দল মঙ্গলবার এই চারা গাছ কেটে নেয়। দল বল নিয়ে তারা এভাবে পাহাড়ি বাঙ্গালী অনেকের চারা গাছ কেটে রাতের আধাঁরে নিকটস্থ ইট ভাটিতে বিক্রি করে দিচ্ছে। গত কয়েকদিন আগে অনুরুপ ভাবে বাগান কাটার জন্য গেলে ওই প্রতিনিধি লক্ষীছড়ি সেনা জোন ও লক্ষীছড়ি থানার অফিস ইনচার্জকে জানালে তাদের হস্তক্ষেপে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।
কিন্তু মঙ্গলবার ভোররাতে এসে কেউ বুঝে উঠার আগেই সন্ত্রাসীরা আবারও বাগান কেটে সাবার করে ফেলে। সন্ত্রাসী গ্রুপটি এতই শক্তিধর যে তাদের এই কাজে কেউ ভয়ে বাধা দেয় না। কেউ কথা বললে তাদের বিরুদ্ধে নানা ভূয়া মামলা করে হয়রানি করে। এছাড়া সুযোগ বুঝে হামলা করতেও সন্ত্রাসীরা দ্বিধাবোধ করেনা।
এসব সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে বেশ কিছু মামলাও রয়েছে। এসব সন্ত্রাসীদের তান্ডবে এই উপজেলায় অনেকেই বাগান হারিয়ে এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছে। সন্ত্রাসীমহলটি পরিকল্পিত ভাবে ভূয়া কিছু কাগজ হাতে নিয়ে ঘুড়ে বেড়ায়। যে সব বাগানের গাছ একটু বড় হয়েছে তারা ওই বাগানে গিয়ে গাছ কাটা শুরু করে। কেউ প্রতিবাদ করলে জমিটা তাদের বলে দাবি করে। এই ভাবে স্থানীয় প্রশাসনকে তারা প্রতি নিয়ত ভুল তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করে যাচ্ছেন। পাহাড়ে বাঙ্গালী পূর্ণবাসেনের ৩০ বছর পর এসে কোন ধরণের আইন কানুনের তোয়াক্কা না করে একের বাগান অপরে কেটে নেয়া সত্যই দূঃখজনক বলে দাবি করেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নেতা। এটি ছাড়া গাজি ট্যাঙ্ক ও বাগান কাটার একটি অভিযোগ লক্ষী ছড়ি থানায় আছে বলে থানার ভারপ্রান্ত কর্মকর্তা জানান। বাঙ্গালীরা বাঙ্গালীর বাগান কেটে নেয়ার ঘটনায় বাগান মালিকেরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। এই ভাবে চারা গাছ কেটে ফেলা হলে পরিবেশের ওপর বিরুপ প্রভাব পড়বে বলে পরিবেশবীদরা জানান। চারা গাছ কাটার বিষয়ে জরুরী ভাবে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেয়া দরকার বলে ভুক্ত ভূগিরা জানান।


আরোও সংবাদ