সহিংসতার জন্য সরকারকে দায়ী-চবির ২১১ জন শিক্ষক

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৫ জানুয়ারি , ২০১৫ সময় ০৯:৪৫ অপরাহ্ণ

দেশের চলমান রাজনৈতিক সহিংসতার জন্য সরকারকে দায়ী করে বিবৃতি দিয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২১১ জন শিক্ষক। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ করে রাখা ও তার উপদেষ্টা রিয়াজ রহমানের ওপর হামলার প্রতিবাদও জানিয়েছেন তারা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চবি শিক্ষক সমিতির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এই প্রতিবাদ জানানো হয়। বিবৃতিদাতারা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএনপি-জামায়াতপন্থি শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ভোটার বিহীন নির্বাচনী তামাশার মাধ্যমে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে রাখা সরকার ক্ষমতার উন্মত্ততায় লিপ্ত হয়ে দুই সপ্তাহ যাবৎ দেশের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। বিশিষ্ট কূটনীতিক রিয়াজ রহমানের মতো অমায়িক ও সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিরা ও সরকারের ঘৃণ্য ছোবল থেকে রেহায় পাচ্ছে না।’

‘অবৈধ এ সরকার রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়ে গুম খুনের মাধ্যমে বিরোধী জোটকে দেশজুড়ে নির্মূলের মহাযজ্ঞ রচনা করেছে। ঢাকা-চট্টগ্রামসহ সারা বাংলাদেশের ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের নির্বিচারে গ্রেপ্তার ও রিমান্ডের মাধ্যমে দেশকে নেতৃত্বশূন্য করার মহোৎসবেও মেতেছে সরকার। যার কারণে পুরো দেশ এক আতঙ্কের দেশে পরিণত হয়েছে।’

বিবৃতিদাতাদের মধ্যে রয়েছেন- অধ্যাপক কে এম গোলাম মহিউদ্দিন, প্রফেসর ড. হাসান মোহাম্মদ, প্রফেসর ড. প্রফেসর ড. আ. ন. ম. মুনির আহমদ, মোজাফফর আহমদ চোধুরী, প্রফেসর ড. সিদ্দিক আহমদ চৌধুরী, প্রফেসর ড. আবুল কালাম আযাদ, প্রফেসর ড. আবদুল করিম, প্রফেসর ড. আতিকুর রহমান, প্রফেসর ড. কামাল হোসাইন, প্রফেসর ড. হারুনুর রশীদ, প্রফেসর ড. মতিউর রহমান, প্রফেসর আবদুল হাকিম, প্রফেসর ড. আলী অজাদী, প্রফেসর আ. ক.ম. আব্দুল কাদের, প্রফেসর ড. মোকতার আহমেদ, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ শামীম উদ্দিন খান, প্রফেসর ড. আশরাফুল ইসলাম, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ শামসুদ্দিন, প্রফেসর ড. রফিকুল ইসলাম, প্রফেসর ড. মোশারফ হোসেন ভূঁইয়া।