সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে সশস্ত্র বাহিনী প্রস্তুত

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২১ নভেম্বর , ২০১৪ সময় ১০:৫৩ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামের জিওসি মেজর জেনারেল সাব্বির আহমেদ এনডিসি পিএসসি বলেছেন, দেশ ও জনগণের সেবায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে সশস্ত্র বাহিনী প্রস্তুত।

শুক্রবার রাতে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাব্বির আহমেদ বলেন, সশস্ত্র বাহিনী সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে সর্বস্তরের মানুষের পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ ও সহযোগিতায় আমাদের প্রিয় মাতৃভূমিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।
সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে সশস্ত্র বাহিনী প্রস্তুত
তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহ্বানে দেশের সর্বস্তরের জনগণ মাতৃভূমির স্বাধীনতার জন্যে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল।

দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় জীবন উৎসর্গকারী বীর শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন চট্টগ্রামের জিওসি।

প্রিয় মাতৃভূমির সার্বভৌমত্ব ও অখণ্ডতা রক্ষায় নিয়োজিত সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনীর সকল সদস্যকে অভিনন্দন জানান।

তিনি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা, উন্নয়নমূলক কার্যক্রম ও আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেনাবাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে আসছে। পাশাপাশি বিজিবি, পুলিশ বাহিনী, আনসার বাহিনীর গুরুত্ব পূর্ণ ভূমিকার প্রশংসা করেন তিনি।

বিমান বাহিনীকে শক্তিশালীকরণ ও জাতির স্বার্থে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর জহুরুল হক ঘাঁটির গুরুত্বপূর্ণ অবদান এবং লেবাননে শান্তিমিশনে বাংলাদেশ নৌ-বাহিনীর যুদ্ধজাহাজ বানৌজা ওসমানকে প্রধানমন্ত্রীর ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড অ্যাওয়ার্ড প্রদান করার বিষয়টি তিনি স্মরণ করেন।

সশস্ত্র বাহিনীর উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরে তিনি বলেন, চট্টগ্রামের বহদ্দারহাট ফ্লাইওভার, কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ, রামুর বৌদ্ধ মন্দির সংস্কারসহ বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে সেনাবাহিনী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

সশস্ত্র বাহিনীর ওপর সরকারের আস্থা, প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা ও বেসামরিক প্রশাসনের আন্তরিক সহযোগিতায় সশস্ত্র বাহিনীর এসব অর্জন ও সফলতা এসেছে বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কমডোর কমান্ডিং চট্টগ্রাম কমডোর আখতার হাবিব (এনডি) এনডিসি, পিএসসি, এয়ার অফিসার কমান্ডিং এয়ার কমডোর মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির এনডিসি, পিএসসি।

জিওসির বক্তব্য শেষে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা কেক কাটেন গৃহায়ণ গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। এসময় ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান জাবেদ, সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিনসহ সামরিক বেসামরিক উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম অঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধা, রাজনীতিবিদ, সরকারি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, কূটনৈতিক, শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, চিকিৎসক, অবসরপ্রাপ্ত সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন