সর্তা খালে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে  বালু উত্তোলন

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| রবিবার, ১ জুলাই , ২০১৮ সময় ০৯:৪৭ অপরাহ্ণ

অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ফলে সর্তার খালের ভাঙ্গন বৃদ্বি পেয়ে খালে বিলিন হচ্ছে এলকার মানুষের ঘর বাড়ী, সড়ক, ফসলী জমি

শফিউল আলম, রাউজান (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ রাউজানের হলদিয়া ইউনিয়নের বড়–য়া পাড়ার পুর্ব পাশের্^ সর্তার খালে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালু উত্তোলন করছে সর্তা খালে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালু উত্তোলন করায় সর্তার খালের ভাঙ্গন বৃদ্বি পেয়ে এলাকার মানুষের ঘর বাড়ী, ফসলী জমি, সড়ক সর্র্তার খালে বিলিন হয়ে পড়ছে । রাউজান উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তরসর্তা, গর্জনিয়া, হলদিয়া বড়–য়া পাড়া, পুরাতন বইজ্যার হাট, হচ্ছার ঘাট এলাকায় সর্তার খালে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালু উত্তোলন করে আসছে এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তিরা । সর্তার খালে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালু উত্তোলন করার ফলে সর্তার খালের ভাঙ্গন দিন দিন বৃদ্বি পাচ্ছে । গত বছরের বর্ষর মৌসুমে সর্তা খালে যে সব এলাকায় বালূ উত্তোলন করা হয়েছিলো সে সব এলাকায় সর্তার খালের ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়ে পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানিতে হলদিয়া হজরত আলী হোসেন শাহ সড়ক, হলদিয়া ভিলেজ রোড, হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, সহ দুই শতাধিক পরিবারের বসতঘর বিধস্থ হয় । গত ২০১৭ সাালে সর্তা খালের ভাঙ্গনে বিধস্থ সড়ক, ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, এলাকার মানুষের ঘর বাড়ী মেরামত করা হয় । ক্ষতিগ্রস্থ সড়ক পুনঃ নির্মান করা হয় । সর্তার খালের ভাঙ্গনের ষÍানগুলো মাটি দিয়ে বাধঁ নির্মান করা হয় । গত ১২ জুন প্রবল বর্ষন ও পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানিতে আবারো হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর সর্তা, হলদিয়া বড়–য়া পাড়া এলাকায় সর্তা খালের ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়ে পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানিতে হলদিয়া হজরত আলী হোসেন শাহ সড়ক, হলদিয়া ভিলেজ রোড, দুির্গাচরন সড়ক, হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, সহ শতাধিক পরিবারের বসতঘর বিধস্থ হয় । গত ১২ জুন প্রবল বর্ষন ও পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানিতে সর্তা খালের ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়ে পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানি প্রবেশ করে এলাকায় বন্যা সৃষ্টি হয়ে পরদিন গত ১৩ জুন রেলপথ মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি সড়কের উপর দিয়ে পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানি দিয়ে গাড়ী নিয়ে পায়েঁ হেটে হলদিয়া বন্যা কবলিত এলাকার পরিদর্শন করেন । বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন কালে স্থানীয় চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম সহ এলাকার লোকজন সর্তা খাল থেকে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালূ উত্তোলন করায় প্রতি বৎসর বর্সার মৌসুমে সর্তার খালের ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়ে পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানি প্রবেশ করে এলাকার সড়ক, মানুষের ঘর বাড়ী, ইউনিয়ন পরিষদ ভবন ক্ষতিগ্রস্থ হছ্ছে বলে রলপথ মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপির কাছে অভিযোগ করেন । এই সময়ে রলপথ মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি সর্তার খাল থেকে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালু উত্তোলন বন্দ্ব করার জন্য স্থানীয় চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম চৌধুরীকে নির্দেশ দেয় । পরবর্তী হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর সর্তা, গর্জনিয়া, হলদিয়া বইজ্যার হাট, হচ্চার ঘাট এলাকায় সর্তার খাল থেকে বালু উত্তোলন করেনি কেউ । গত ৪ দিন পুর্বে হলদিয়া ইউনিয়নের বড়–য়া পাড়ার পুর্ব পাশের্^ জাহেদুল আলম হিরু নামে এক যুবক সর্তার খালের মধ্যে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে পুনরায় বালু উত্তোলন করছে বলে এলাকার লোকজনের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে সরেজমিনে হলদিয়া বড়ূযা পাড়া এলাকার পুর্ব পাশের্^ হলদিয়া ভিলেজ রোড এলাকায় গিয়ে সর্তা খালে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালু উত্তোলন করতে দেখা যায় । সর্তার খালে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় সৃষ্ট সর্তার খালের ভাঙ্গনে হলদিয়া হচ্চার ঘাট, পুরাতন বইজ্যার হাট, হলদিয়া বড়–য়া পাড়া, উত্তর সর্তা, গজনিয়া, শিরনী বটতল এলাকায় শতাধিক পরিবারের বসতঘর সর্তার খালে বিলিন হয়ে গেছে । আরো শতাধিক পরিবারের বসতঘর হুমকির মুখে । হলদিয়া পুরাতন বইজ্যার হাট, বড়–য়া পাড়ার পুর্বে, হলদিয়া ভিলেজ, উত্তর সর্তা হজরত আলী হোসেন শাহ সড়ক, দুর্গচরন সড়ক বিভিন্ন স্থানে সর্তার খালে বিলিন হয়ে গেছে । সর্তার খাল থেকে হলদিয়া বড়–য়া পাড়া এলাকায় পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালু উত্তোলন করা প্রসঙ্গে রাউজান উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন সর্তা খাল থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন কালে পুবেই একধিকবার অভিযান চালিয়ে বালূ উত্তোলনের কাজে ব্যবহৃত পাওয়ার পাম্প ধংস করা হয়েছে। অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় জরিমানা আদায় করা হয়েছে । সর্তার খালে কেউ আবারো অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করলে তাদের বিরুদ্বে অভিযাণ পরিচালন করা হবে ।