‘সরকারের ফাঁদে পা দেবে না বিএনপি’ আব্বাস

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৪ সেপ্টেম্বর , ২০১৪ সময় ১১:১৮ অপরাহ্ণ

সরকারের পাতা কোন ফাঁদে বিএনপি পা দেবে না বলে মন্তব্য করেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ঢাকা মহানগরের আহ্বায়ক মির্জা আব্বাস। বলেছেন, সরকার যতই উস্কানি দিক না কেন আমরা তাতে পা দেবো না। আমরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমেই নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি আদায় করবো। জনগণের জন্য একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের ব্যবস্থা করবো। আজ বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘তারেক রহমানের ৭ম কারামুক্তি দিবস’ উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম ঢাকা মহানগর (উত্তর) আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। মির্জা আব্বাস বলেন, বকসীবাজারের অস্থায়ী আদালত চত্বরে বিএনপি নেতাকর্মীরা সমবেত হতে পারবেন না- এমন নির্দেশ তো দেয়া ছিল না। তারপরও বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশি হামলা কেন? তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ নেতারা প্রায়শই বলেন, বিএনপি নাকি কোন দলই না। তাহলে সেই দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে এত মামলা দিচ্ছেন কেন? অবৈধভাবে গ্রেপ্তার করছেন কেন? দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আন্দোলন করতে চাইলে ভাইদের নামে সেøাগান দেয়া বন্ধ করেন। এতে কোন লাভ হবে না। যার যার এলাকায় গিয়ে সংগঠন গোছান, আন্দোলনের প্রস্তুতি নিন। সরকারের মন্ত্রীদের সমালোচনা করে তিনি বলেন, অজ্ঞাত, অখ্যাত লোক হঠাৎ করে মন্ত্রী হয়ে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীকে খুশি করার জন্য তারেক রহমানকে নিয়ে লম্বা লম্বা কথা বলছেন। মির্জা আব্বাস বলেন, শহীদ জিয়ার নাম শুনলে আওয়ামী লীগ নেতা ও কিছু বুদ্ধিজীবীদের হৃদ স্পন্দন বেড়ে যায়। আর তারেকের নাম শুনলে তাদের গায়ে চুলকানি ধরে। অথচ তিনি যে বক্তব্য দেন, তা তথ্যের ভিত্তিতেই দেন। তারেক রহমান সরকারের আতঙ্কে পরিণত হয়েছেন দাবি করে আব্বাস বলেন, আমরা অপেক্ষা করছি তারেক রহমান আসার পর সরকারের কি অবস্থা হয় তা দেখার জন্য। সম্প্রচার নীতিমালা ও বিচারকদের অভিশংসন আইনের সমালোচনা করে মহানগরের এই আহ্বায়ক বলেন, সরকার গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিচ্ছে। যা সম্প্রচার নীতিমালা ও বিচারকদের অভিশংসন আইন করে প্রমাণ করেছে। তারা হয়তো কয়েক দিন পর বলবেন বাড়ি থেকে বের হতে হলে তাদের অনুমতির দরকার হবে। সভায় সংগঠনের সভাপতি শামা ওবায়েদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, বিএনপির শিল্পবিষয়ক সহ-সম্পাদক শাহাজাদা মিয়া, মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মের মহানগর উত্তরের সভাপতি এসএম রিয়েল রোমান প্রমুখ।