সরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে নাবিক নিয়োগ বাধ্যতামূলক হচ্ছে

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৩ নভেম্বর , ২০১৫ সময় ১০:৩৫ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজে দেশের একমাত্র সরকারি নাবিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউট(এনএমআই) থেকে পাশ করা নাবিক নিয়োগ বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। তবে এক্ষেত্রে বেসরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলো অন্তর্ভূক্ত হবে না।
ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউট
একই সঙ্গে দেশিয় পতাকাবাহী জাহাজে দুইজনকে করে নবীন নাবিক নিয়োগ দেওয়ার বিষয়টিও বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এই সিদ্ধান্তের ফলে নাবিকদের চাকরি নিশ্চিত হওয়ার পাশাপাশি এনএমআই দক্ষ প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি পেল।

মঙ্গলবার সমুদ্র পরিবহন অধিদফতরে অনুষ্ঠিত এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সমুদ্র পরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমোডর জাকিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশন, মেরিন একাডেমি, এনএমআই প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউট2
জাকিউর রহমান ভূঁইয়া বলেন, বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজে এনএমআই থেকে প্রশিক্ষণ নেওয়া নাবিকদের নেওয়া হতো না। এতে বাজার সংকুচিত হয়ে পড়ে। এছড়া প্রশিক্ষিত নাবিকরা চাকরি না পেয়ে হতাশায় ভুগতো।

তিনি বলেন, দেশিয় পতাকাবাহী জাহাজে এনএমআই থেকে পাশ করা নাবিক নিয়োগ বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। এছাড়া প্রতি জাহাজে সদ্য পাশ করে বের হওয়া দুইজন নাবিক নিয়োগ দিতে হবে।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে পাশ করা এবং জাল সিডিসি সনদ নিয়ে দেশি বিদেশি জাহাজে চাকরি নিয়ে বাংলাদেশের সুনাম ক্ষুণ্ন করেছে।তাই বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শিপিং কোম্পানীগুলো বাংলাদেশ থেকে নাবিক নিয়োগ বন্ধ করে দেয়। এমনকি অনেক দেশ কালো তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে।

ফলে দেশের সরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়েও চাকরি সংকটে ভুগছে নাবিকরা। এছাড়া নবীন নাবিকদের নিয়োগে আগ্রহ না থাকায় অভিজ্ঞ নাবিক সংকটে পড়ে। এসব সমস্যা থেকে উত্তোরণে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছিল সমুদ্র পরিবহন অধিদফতর। সবার মতামতের ভিত্তিতে মঙ্গলবার গুরুত্বপূর্ণ দুটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সূত্র জানায়, জাহাজের মেনিং এজেন্টগুলো ২ বছরে ২০জন নাবিক নিয়োগ দেওয়ার কথা। তারা অফিসার পদে নিয়োগ দিলেও নাবিক নিয়োগ দিত না। তাই এখন থেকে ৮জন নাবিক এবং ১২ জন অফিসার নিয়োগের বিষয়ে আলোচনা চলছে। মেনিং এজেন্টদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।


আরোও সংবাদ