সমাজ বিনির্মাণে দানু আমৃত্যু কাজ করে গেছেন

প্রকাশ:| সোমবার, ২২ সেপ্টেম্বর , ২০১৪ সময় ১১:২০ অপরাহ্ণ

মরহুম কাজী ইনামুল হক দানু’র স্মরণ সভা – ড. অনুপম সেন
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রখ্যাত সমাজবিজ্ঞানী প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেছেন, কাজী সমাজ বিনির্মাণে দানু আমৃত্যু কাজ করে গেছেনইনামুল হক দানু একজন আপাদমস্তক খাঁটি,গণতান্ত্রিক নিবেদিত প্রাণ রাজনৈতিক ব্যক্তি ছিলেন। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি সক্রিয় অংশগ্রহণ করে সাহসী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন। একটি দেশ ও জাতির জন্য যারা জীবনকে উৎসর্গ করতে ঝুঁকি নিতে পারেন,তারা ইতিহাসে সবসময় স্মরণীয় হয়ে থাকেন। একজন ব্যক্তি দানু একটি দেশ বিনির্মাণে যে অবদান রেখে গেছেন সে অবদানের কথা স্মরণ রেখে আমরা ইনামুল হক দানুকে শ্রদ্ধা জানাতে চাই। রাজনীতির মঞ্চে তার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দলের কাছে নিজেকে আত্মনিয়োগ করতে সক্ষম হয়েছেন। তিনি নির্লোভ,নিরহংকারী,সদালাপী একজন মানুষ ছিলেন। কাজী ইনামুল হক দানু একটি মানবিক মর্যাদাবোধ সম্পন্ন সমাজ বিনির্মাণে আমৃত্যু কাজ করে গেছেন। বহুমুখী প্রতিভার স্বাক্ষর এই মানুষটি জীবদ্দশায় তাঁর কর্মের মধ্য দিয়ে প্রমাণ রেখে গেছেন। ড. অনুপম সেন প্রয়াত নেতার স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
আজ বিকেল ৪ টায় চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত সংগঠনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী ইনামুল হক দানু’র প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে স্মরণ সভায় সভাপতিত্ব করেন মহানগর আওয়ামী লীগের অন্যতম সহ-সভাপতি কাউন্সিলর জহিরুল আলম দোভাষ। স্মরণ সভায় চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, কাজী ইনামুল হক দানু ছাত্র জীবন থেকেই আওয়ামী রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হন। বাঙালির মুক্তির সংগ্রামে নিজেকে নিঃশেষ করে দিয়েছিলেন। অসীম সাহসে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ’৭৫ পরবর্তী দলের দুঃসময়ে যখন এই বাংলাদেশে আওয়ামী লীগ আদর্শের রাজনীতি বিলুপ্ত করার ষড়যন্ত্র শুরু হয়,তখনই আত্মপ্রত্যয়ে বলীয়ান হয়ে কাজী ইনামুল হক দানু দলের অগ্রভাগে থেকে চট্টগ্রামের রাজনীতিতে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে গেছেন।
চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাড.সুনীল কুমার সরকার, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য আলহাজ্ব শফর আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব বদিউল আলম, এম এ রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, আইন সম্পাদক অ্যাড.শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর, বন ও পরিবেশ সম্পাদক মসিউর রহমান চৌধুরী, কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব ফিরোজ আহমেদ, বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নুরুল আলম, কেন্দ্রীয় যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ্ব সৈয়দ মাহমুদুল হক ও প্রয়াত নেতা কাজী ইনামুল হক দানুর জৈষ্ঠ্য সন্তান কাজী রাজেশ ইমরান। স্মরণ সভায় পবিত্র কোরাণ তেলাওয়াত করেন অধ্যাপক মাসুম চৌধুরী।
দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন উপলক্ষে সকালে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে চট্টেশ্বরী রোডস্থ মরহুমের কবর সন্নিকট মসজিদে খতমে কোরাণ,দোয়া ও মিলাদ মাহফিল এবং মরহুমের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও ফাতেহা পাঠ করা হয়। মোনাজাত করেন সংগঠনের উপ-প্রচার সম্পাদক হাজী শহীদুল আলম। এসময় মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন, সহ-সভাপতি অ্যাড. সুনীল সরকার, অ্যাড.ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল , আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু,আলহাজ্ব বদিউল আলম, এম এ রশিদ, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, হাসান মাহমুদ হাসনী, আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম ফারুক, আহমেদুর রহমান সিদ্দিকি, চন্দন ধর, মসিউর রহমান চৌধুরী, ড.ফয়সল ইকবাল চৌধুরী, হাজী জহুর আহমেদ, আবদুল আহাদ, মো. আবু তাহের, দেবাশীষ গুহ বুলবুল, মো. শহীদুল আলম, কার্য নির্বাহী সদস্য আবুল মনসুর, বখতেয়ার উদ্দিন খান, গৌরাঙ্গ চন্দ্র ঘোষ, সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, আবদুল লতিফ টিপু, চান্দগাঁও থানার আহবায়ক আলহাজ্ব নুরুল ইসলাম, পাঁচলাইশ থানার যুগ্ম আহবায়ক হাজী মো. ইয়াকুব, বাকলিয়া থানার যুগ্ম আহবায়ক সিদ্দিক আলম, চকবাজার থানার সভাপতি আলহাজ্ব শাহাবুদ্দিন আহমেদ, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আনসারুল হক, পতেঙ্গা থানার যুগ্ম আহবায়ক এএমএন ইসলাম, আকবর শাহ থানার সাধারণ সম্পাদক কাজী আলতাফ হোসেনসহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।