‘সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার প্রধান বাধা’

প্রকাশ:| বুধবার, ১৭ আগস্ট , ২০১৬ সময় ০৯:৪৪ অপরাহ্ণ

মেনন হত্যার চেষ্টারাশেদ খান মেনন হত্যাপ্রচেষ্টার সাথে জড়িতদের যারা অতীতে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতা দিয়েছে পরবর্তীতে তাদের মদদেই জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটেছে বলে অভিযোগ তুলেছেন চট্টগ্রামের ওয়ার্কার্স পার্টির নেতারা।

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন ‘হত্যাপ্রচেষ্টার ২৪ তম বার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার আয়োজিত এক প্রতিবাদ সভায় এ অভিযোগ করেন সংগঠনটির চট্টগ্রাম জেলা শাখার সভাপতি আ্যাডভোকেট আবু হানিফ।

নগরীর দোস্ত বিল্ডিং এ অবস্থিত দলীয় কার্যালয়ে এই সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে অ্যাডভোকেট আবু হানিফ বলেন, যেকোন ধরনের সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও গুপ্তহত্যা গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার প্রধান বাধা।

“রাশেদ খান মেননকে যারা হত্যা করতে চেয়েছিল তাদেরকে তৎকালীন বিএনপি সরকার রাষ্ট্রীয়ভাবে মদদ দিয়েছিল। পরবর্তীতে তাদের হাত ধরেই জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটেছে। আজকে জঙ্গিবাদবিরোধী সংগ্রামের সফলতার মধ্যেই মেননের হত্যা প্রচেষ্টাকারী ও তাদের মদদদাতাদের পরাজয় নিশ্চিত করা যাবে।’ মন্তব্য করেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি।

চট্টগ্রাম জেলা শাখার সভাপতি আ্যাডভোকেট আবু হানিফ আরও বলেন, গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা, সামাজ্র্যাবাদবিরোধী এবং অসাম্প্রদায়িক রাজনীতি প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে জনগণের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠাই আজকের প্রধান কাজ।

সভায় ওয়ার্কাস পার্টি চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক শামসুদ্দিন খালেদ সেলিম বলেন, রাশেদ খান মেনন কোন ব্যক্তি নয়, তিনি গণতন্ত্র ও অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির পুরোধা।

‘তার হত্যাপ্রচেষ্টার মধ্য দিয়ে তৎকালিন বিএনপি সরকার অসাম্প্রদায়িকতার রাজনীতিকে রুদ্ধ করতে চেয়েছিল। কিন্তু জনগণের প্রবল প্রতিরোধে তা সম্ভব হয়নি।’

তিনি এ প্রতিরোধ দিবসে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িতকার বিরুদ্ধে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান।

সংগঠনের চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য শরীফ চৌহানের সঞ্চালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সংগঠনের জেলা কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য ইন্দ্রকুমার নাথ, জেলা কমিটির সদস্য নুরুল ইসলাম, দিদারুল আলম চৌধুরী, মোক্তার আহমদ ও আবু সৈয়দ বলাই। সভা শেষে একটি মিছিল নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে।