সন্তান কোথায় যাচ্ছে, কি করছে খেয়াল রাখুন

প্রকাশ:| শনিবার, ২৫ মার্চ , ২০১৭ সময় ১১:০২ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ারুল আজিম আরিফ বলেছেন, প্রয়াত শিক্ষক রশিদ আহমেদ চৌধুরী জ্ঞানের আলোকবর্তিকা হিসেবে ফটিকছড়ির জনগণের মাঝে বেঁচে থাকবেন।  সারাজীবন তিনি শিক্ষার আলো ছড়ানোর কাজে ব্যয় করেছেন।  প্রগতিশীল চিন্তা চেতনার মানুষ হিসেবে সমাজে সমাদৃত হয়ে অল্প সময়ের মধ্যে সকলের মন জয় করেছেন।

শনিবার বিকালে ফটিকছড়ি উপজেলার সমিতিরহাট ইউনিয়নে মাস্টার রশিদ আহমেদ চৌধুরী গণপাঠাগার উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

উপাচার্য আরো বলেন, ইন্টারনেট এর প্রতি বর্তমান তরুণ সমাজের মারাত্মক আকর্ষণ রয়েছে।  তারা দিনের অধিকাংশ সময় এখন ফেইসবুক, টুইটারে ব্যবহার করছে। ইন্টারনেটের প্রতি বিশেষ আকর্ষনের ফলে তারা এখন আর বই পড়ছে না।  শুধু তাই নয়, মানবিক মূল্যবোধ হারিয়ে ফেলছে তারা।

‘অভিভাবকদের খেয়াল রাখতে হবে তার সন্তান কোথায় যাচ্ছে? কি করছে? সন্তানদের পুঁথিগত শিক্ষার পাশাপাশি নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে।  শুধু পড়লে হবে না প্রকুত শিক্ষা অর্জন করতে হবে।  তাহলেই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ আমরা গড়ে তুলতে পারবো। ’

অধ্যাপক আনোয়ারুল আজিম আরিফ ‘রশিদ আহমেদ চৌধুরী’ গণ পাঠাগার বাঁচিয়ে রাখার আহ্বান জানান।

সমাজসেবক হারুনুর রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ডা.জসীম উল হাসান,  সমিতিরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ ইমন, সাবেক চেয়ারম্যান নুর আহমেদ, সাবেক প্রধান শিক্ষক শাহ আলম, সমিতিরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাঈনুদ্দিন আহমেদ, সরকারী মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আসাদুজ্জামান খোকন, শিক্ষক সমীরণ বড়ুয়া প্রমুখ।

আরও বক্তব্য রাখেন রশিদ আহমেদ চৌধুরীর ছেলে জোনায়েদ রশিদ।  স্বজনদের মধ্যে জাহেদুল কবির, মো.মহিউদ্দিন, হায়দার রশিদ মঞ্জু, শওকত নাজিম, তানজিলা উর্মি, তাহমিনা সুরমি, রেহনুমা নিম্মি, তাজরীন রুসমীও বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রধান অতিথি ফিতা কেটে রশিদ আহমেদ চৌধুরী গণপাঠাগার উদ্বোথন করেন।


আরোও সংবাদ