সকল ফলের সেরা ফল আম

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৩ জানুয়ারি , ২০১৭ সময় ০৯:৫৮ অপরাহ্ণ

কৃষি গবেষণা কেন্দ্র আয়োজিত “ফলের উন্নত জাতের পরিচিতি ও উৎপাদন কলাকৌশল”
শীর্ষক কর্মশালায় সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, সকল ফলের সেরা ফল আম। তাই আমকে ফলের রাজা বলা হয়। এদেশের মানুষের খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তায়, ফলমূল উৎপাদনে কৃষি গবেষনা কেন্দ্র গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। মেয়র উন্নত জাত বিশেষ করে বারি আম-১১ জাতের উপর গুরুত্তারোপ করে বলেন, বারি আম-১১ জাতটি কৃষি গবেষণা কেন্দ্র, পাহাড়তলী, চট্টগ্রাম থেকে আজ মুক্তায়িত হয়েছে। যার উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট হল সারা বছর ফলন দেয়, মিষ্টতা বেশী এবং গুচ্ছাকারে ফল দেয়। তিনি বিএআরআই উদ্ভাবিত এই প্রযুক্তি ছাদ কৃষিতে অন্তর্ভূক্তির জন্য আহবান জানান। মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে মাঠে একই আমের গাছে পাকা আম, কাচা আম, গুটি আম ও ফুলের সমারোহ দেখে প্রধান অতিথি এই প্রযুক্তি চট্টগ্রামসহ সারা দেশে বিস্তারের জন্য কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. এ এস এম হারুনর রশীদ কে পরামর্শ দেন। ০৩ জানুয়ারী ২০১৭ খ্রি. মঙ্গলবার, সকালে পাহাড়তলীস্থ কৃষি গবেষণা কেন্দ্র, চট্টগ্রাম এ “আমের উন্নত জাতের পরিচিতি ও উৎপাদন কলাকৌশল শীর্ষক” কৃষক প্রশিক্ষণ ও বারি আম-১১ এর উপর মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনষ্টিটিউট উদ্যানতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্র এর মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা (ফল বিভাগ) ড. মদন গোপাল সাহা। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোঃ সামসুল আরেফিন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম এর জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ গিয়াস উদ্দিন । অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৃষি গবেষণা কেন্দ্র, পাহাড়তলী, চট্টগ্রাম এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ড. এ এস এম হারুনর রশীদ। উক্ত অনুষ্ঠান উপস্থাপন করেন অত্র কেন্দ্রের উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জনাব মোঃ মনিরুজ্জামান। উক্ত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন, গবেষণা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞানীবৃন্দ, চট্টগ্রাম জেলার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন বেসরকারী সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দ এবং প্রগতিশীল কৃষক-কৃষানীসহ মোট ১৫০ জন অংশগ্রহণ করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক শামসুল আরেফিন বলেন, বারি আম-১১ সারা বৎসর পুষ্টিতে ভূমিকা রাখবে এবং অমৌসুমে কৃষকদের লাভবান হতে সহায়তা করবে। এই রকম সারা বছর আমের জাত উদ্ভাবনের জন্য তিনি বিজ্ঞানীদের ধন্যবাদ জানান। পরে মেয়র গবেষনা মাঠে বারী আম-১১ এর একটি চারা রোপন করে অংশগ্রহণকারী সকল অতিথিবৃন্দকে সাথে নিয়ে এআরএস এর গবেষণা মাঠে বারি আম-১১ সরেজমিনে পরিদর্শন করেন।