সংসদ ভাঙ্গার ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচনের প্রস্তুতি

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট , ২০১৩ সময় ০৮:৩৫ অপরাহ্ণ

ec-logo-tm_6345_0নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ বলেছেন, নবম জাতীয় সংসদ ভেঙ্গে যাওয়ার পূর্ববর্তী নব্বই দিনের মধ্যে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে কাজ করছে কমিশন।

আজ বৃহসপতিবার দুপুরে রাজধানীর শেরেবাংলানগরের নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

এ সময় শাহনেওয়াজ বলেন, আমরা সংসদ ভাঙ্গার পূর্ববতী ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে ভোটার তালিকা হালনাগাদ, সংসদীয় আসনসমূহের সীমানা পূনর্নির্ধারণ এবং পূনর্নির্ধারিত আসনসমূহের সাথে ভোটার তালিকার পূনর্বিন্যাসের কাজ শেষ হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, কমিশন সচিবালয় নির্বাচনের জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণাদি সংগ্রহের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

শাহনেওয়াজ বলেন, নির্বাচন কমিশন এবং নির্বাচনমুখী রাজনৈতিক দলগুলো তাদের নিজ নিজ কার্যক্রম নিয়ে ব্যস্ত রয়েছে। নির্বাচন করার জন্য প্রয়োজন হলে কমিশনের স্টেকহোল্ডাদের সাথে আলোচনা করা হবে।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আচরণবিধির পরিবর্তন সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কমিশনে এ ব্যাপারে এখনও কোন আলোচনা হয়নি। তবে প্রয়োজনের তাগিদে আচরণবিধিতে কোন পরিবর্তন আনা হলে সে ব্যাপারে রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে আলোচনা করা হবে।

কমিশনের প্রস্তাবিত গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) বর্তমান সংসদের মেয়াদের মধ্যে সংসদে পাস করানো সম্ভব হবে কি-না তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, সংসদ বিদ্যমান না থাকলেও আরপিও অধ্যাদেশ আকারে পাস হতে পারে। তবে কমিশনের প্রত্যাশা হলো প্রস্তাবিত এ আরপিও যেন সংসদেই পাস হয়।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, বিগত কমিশনের সংশোধনের প্রস্তাবগুলোকে প্রধান্য দিয়েই সংশোধিত আরপিও আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। বর্তমান কমিশন খুবই ছোট-খাটো বিষয়ে পরিবর্তন এনেছে মাত্র।

তিনি বলেন, প্রস্তাবিত আরপিও নিয়ে কোন জটিলতা সৃষ্টি হলে বিদ্যমান আরপিও দিয়ে নির্বাচন অনুষ্ঠানে কোন বাধা নেই। কেননা এই আরপিও দিয়েই নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনষ্ঠিত হয়েছিল।

কূটনীতিকদের সাথে কমিশনের সংলাপ অনুষ্ঠানের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দাতা সংস্থা বিভিন্ন নির্বাচনী উপকরণাদি সরবরাহের মাধ্যমে সহায়তা দান করে থাকে। এসব বিষয় নিয়ে দাতা সংস্থার প্রতিনিধিদের সাথে কমিশনের প্রায়ই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে।