সংসদ থেকে ওয়াকআউট করেছে বিএনপির সাংসদেরা

প্রকাশ:| বুধবার, ২৩ অক্টোবর , ২০১৩ সময় ০৯:৪৮ অপরাহ্ণ

jatiya sangsad_জাতীয় সংসদ অধিবেশন

সংসদ থেকে ওয়াকআউট করেছেন প্রধান বিরোধী দল বিএনপির সাংসদেরা। আজ বুধবার রাত পৌনে আটটার দিকে সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী নিয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ সেলিম বক্তব্য দেওয়ার সময় তাঁরা ওয়াকআউট করেন।

এর আগে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার প্রস্তাব সংসদে উত্থাপন করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক স্পিকার ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার।

জমির উদ্দিন সরকারের প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের নেতা তোফায়েল আহমেদ। তিনি ওই প্রস্তাবের বিষয়ে বলেন, ‘বিরোধীদলীয় নেতার প্রস্তাব অনুযায়ী ১০ জন সদস্য খুঁজে পাওয়া যাবে না।’ তারপর বক্তব্য দেন বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক। এরপর বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এম কে আনোয়ার। এ সময় সংসদে তত্ত্বাবধায়ক সরকার-সংশ্লিষ্ট খালেদা জিয়ার বক্তব্য নিয়ে আলোচনা বেশ জমে ওঠে। এম কে আনোয়ারের বক্তব্য শেষ হলে শেখ সেলিম বক্তব্য দেওয়া শুরু করেন। শুরুতেই শেখ সেলিম সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী নিয়ে কথা বলেন। এ সময় তিনি জিয়াউর রহমানকে জড়িয়ে বক্তব্য দেওয়া শুরু করলে বিএনপির সাংসদেরা ওয়াকআউট করেন।

এর আগে মাগরিবের নামাজের বিরতির পর অধিবেশন বসলে বিএনপির সাংসদেরা অধিবেশনে যোগ দেন। এ সময় সাবেক স্পিকার জমির উদ্দিন সরকার, বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুকসহ সাংসদেরা উপস্থিত ছিলেন।

সরকার চায় না বলেই ঔদ্ধত্য আচরণ করে বিরোধীদলকে ওয়াকআউট করতে বাধ্য করেছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতা এমকে আনোয়ার।

আজ বুধবার জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন এ কথা বলেন তিনি।

এর আগে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা আনুষ্ঠানিকভাবে পয়েন্ট অব অর্ডারে সংসদে উত্থাপন করলেন ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার। পরে আওয়ামী লীগ নেতা শেখ সেলিমের বক্তব্যের প্রতিবাদে সংসদ থেকে ওয়াকআউট করেছে বিএনপির সংসদ সদস্যরা।

নবম জাতীয় সংসদের ১৯তম অধিবেশনে যোগ দিয়েছে প্রধান বিরোধীদল বিএনপি। বুধবার কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকের পর তারা অধিবেশনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

বুধবার মাগরিবের নামাজের বিরতির পর বিএনপির সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকারের নেতৃত্ব দলের সাংসদরা অধিবেশন কক্ষে প্রবেশ করেন। তবে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া অধিবেশনে যোগ দেননি।

১৮ দলীয় জোটের শরিক জামাত, বিজেপি ও এলডিপির সদস্যরাও অধিবেশনে রয়েছেন। ১৩ দিন বিরতির পর বিকেল পৌনে ৫টায় নবম জাতীয় সংসদের ১৯তম মুলতবি অধিবেশন শুরু হয়। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এতে সভাপতিত্ব করছেন।

এর আগে আগামী ৭ নভেম্বর পর্যন্ত জাতীয় সংসদের ১৯তম অধিবেশন চলবে বলে কার্যউপদেষ্টার বৈঠকে ঠিক করা হয়। স্পিকার শিরিন শারমীন চৌধুরী নেতৃত্বে এ বৈঠক চলে। সংসদের গণসংযোগ শাখার পরিচালক জয়নাল আবেদীন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।