সংবিধান পরিবর্তনে বাধ্য করা হবে

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৫ সেপ্টেম্বর , ২০১৩ সময় ০৬:৩৩ অপরাহ্ণ

jagpaসংবিধান পরিবর্তনে বাধ্য করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে যুব জাগপার ২৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে যুব সমাবেশে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, “সংবিধান কুরআন- বাইবেল নয়, এটা মানুষের জন্য পরিবর্তন করতে হবে। সময় অত্যান্ত কম। প্রস্তুতি নিতে হবে। যত ধরনের কৌশল আছে প্রয়োগ করে সংবিধান পরিবর্তনে বাধ্য করতে হবে।”

সুশীলদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, “প্রধানমন্ত্রী সুশীলদের নিয়ে বিষোদগার করেছেন। যখন আপনারা বিরোধী দলে ছিলেন তখন এদের কথায় গুরুত্ব দিয়ে খুব কথা বলেছিলেন। এখন সুশীলরা খুব খারাপ হয়ে গেল। এরা জনগণের বিবেক। দেশ ও জনগণের জন্য সত্য কথা বলেন।”

তিনি বলেন, “৯৬ সালে তত্ত্বাবধায়কের আন্দোলনের সময় আপনারা বুকলেট তৈরি করেছিলেন। সেখানে খালেদা জিয়ার অধীনে নির্বাচনে না যাওয়ার কারণ বলেছিলেন। এখন আবার গান পাল্টিয়েছেন। কাউকে না কাউকেতো শুরু করতে হবে।”

“এই দেশের মানুষ চিরকাল অন্যায়ের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছে। দেশের মানুষ এই সরকারের ফ্যাসিস্ট আচরণ কখোনো মেনে নেবে না বলেও যোগ করেন তিনি।”

বিএনপি ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, “এখন আবার নতুন সুর আবিষ্কার করেছেন। মিছিল বা র‌্যালির অনুমতি চাইলে বলা হচ্ছে অনুমতি হবে না। আমার প্রশ্ন এটা কোন রাজতন্ত্রের দেশ? আমাদের অধিকার আদায় করতে দেয়া হচ্ছে না।”

ফখরুল বলেন, “রাস্তার মোড়ে মোড়ে পুলিশ প্রস্তুত রেখেছে। এর কারণ যখন জনগণের আস্থা হারিয়ে ফেলে তখন প্রসাশনের ওপর নির্ভর করে। পুলিশ এদেশেরই সন্তান। যখন দেখবেন জনগণের বিরুদ্ধে যাচ্ছে তখন তারা রাইফেল ফেলে দিয়ে জনগণের কাতারে অবস্থান নেবে।”

আওয়ামী লীগ নেতাদের সমালোচনা করে বিএনপি মুখপাত্র বলেন, “রাতের অন্ধাকারে যখন মানুষ ভয় পায়, তখন ভয় তারানোর জন্য গলা ছেড়ে গান গায়। আওয়ামী লীগ এখন ভয় পেয়েছে। এই জন্য গলা ছেড়ে বড় বড় আস্ফালন দিচ্ছে।”

সমাবেশের সভাপতিত্ব করেন যুব জাগপার কেন্দ্রীয় সভাপতি ইনসানুল আলম আক্কাস। বক্তব্য রাখেন জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান ও যুব জাগপার সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম শিকদার।