সংবাদ সম্মেলনে বান্দরবানে বিএনপি-জেএসএস নেতারা ঝুকিপূর্ন ১৭টি কেন্দ্রে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে জয় ছিনিয়ে নেয়ার শঙ্কা

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৩ মার্চ , ২০১৪ সময় ০৬:৫১ অপরাহ্ণ

b 13aবান্দরবান প্রতিনিধি ॥
বান্দরবানে দুই উপজেলার ১৭টি ঝুকিপূর্ন কেন্দ্রে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে জয় ছিনিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছে বিএনপি-জেএসএস নেতারা। বৃহস্পতিবার পৃথক দুটি সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি এবং জনসংহতি সমিতির শীর্ষ নেতারা ক্ষমতাসীন দলের বিরুদ্ধে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ এনে এই শঙ্কা প্রকাশ করেছেন তারা। এসময় বিএনপির পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিএনপির প্রধান নির্বাচনী সমন্বয়ক ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. কাজী মহোতুল হোসেন যতœ এবং আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠন জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) নির্বাচনী সমন্বয়ক ও জেএসএস কেন্দ্রীয় যুগ্ন সম্পাদক কেএসমং মারমা।
সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির পক্ষে দাবী করা হয় বান্দরবান সদরের ৮টি এবং আলীকদম উপজেলায় ৯টি ভোট কেন্দ্র খুবই ঝুকিপূর্ণ। কেন্দ্রগুলোতে ক্ষমতাসীন দলের নেতারা প্রভাব বিস্তারের মাধ্যমে জয় ছিনিয়ে অপচেষ্ঠায় লিপ্ত রয়েছেন। স্থানীয় ভোটারদের মাঝেও জয় ছিনিয়ে নেয়ার ব্যাপারে খবর ছড়িয়ে দিয়েছেন। নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের জন্য বান্দরবান ও আলীকদম উপজেলার ২৯জন প্রিসাইডিং অফিসার’কে নির্বাচনী দায়িত্ব থেকে সরিয়ে নেয়ার অপচেষ্ঠা চালাচ্ছে। অথচ উক্ত প্রিসাইডিং অফিসাররা গত ৫ জানুয়ারীর বির্তকিত নির্বাচনে সঠিক দায়িত্ব পালনের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদপত্র দেয়া হয়। এছাড়া সাধারণ ভোটারদের মাঝে কালো টাকা বিতরনেরও অভিযোগ করেছেন বিএনপি-জেএসএস নেতারা। ক্ষমতাসীন দলের বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষ প্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকদের হামলা-নির্যাতনেরও অভিযোগ করেছেন জেএসএস। ঝুকিপূর্ণ ১৭টি কেন্দ্রে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়োগসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীদের নিরপেক্ষ ভুমিকা পালনের আহবান জানান তারা।
এদিকে জেলা রির্টানিং অফিসার ইশরাত জামান জানান, নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহনযোগ্য করতে প্রশাসন প্রস্তুত রয়েছে। প্রার্থীদের অভিযোগ আমলে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। প্রভাব বিস্তার করে কোন প্রার্থী পার পাবে না, প্রদত্ত আইনে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ বিষয়ে তিনি সাংবাদিকদের সহযোগিতা চেয়েছেন।