শ্রমিকদের রক্ত ও ঘামে বিশ্ব সভ্যতা গড়ে উঠেছে

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বুধবার, ২ মে , ২০১৮ সময় ০৬:১২ অপরাহ্ণ

মহান মে দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম অটোরিকশা-অটোটেম্পু
শ্রমিক ইউনিয়নের সমাবেশ ও বর্ণাঢ্য র‌্যালী
চট্টগ্রাম অটোরিকশা-অটোটেম্পু শ্রমিক ইউনিয়ন এর সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ বলেছেন, আজ মহান মে দিবস। শ্রমিকের শ্রমের-ঘামের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের দিন। শ্রমজীবী মানুষের অধিকার আদায়ের রক্তঝরা সংগ্রামের গৌরবময় দিন। তিনি বলেন, বাংলাদেশে শ্রমজীবি মানুষেরা এখনো তাদের অধিকার ফিরে পায়নি। তিনি বলেন, দোহাজারীতে পুলিশ বেপরোয়া গুলি চালিয়ে শ্রমিকদেরকে গুরুত্বর আহত করার পর তাদের বিরুদ্ধে উল্টো মামলা দিয়ে চালকদের হয়রানী করে যাচ্ছে। অবিলম্বে মামলা প্রত্যাহার করে আহত চালকদের চিকিৎসা নিশ্চিত করা এবং তাদের পরিবার পরিজনের ভরন পোষনের ব্যবস্থা করতে হবে।
চট্টগ্রাম অটোরিকশা-অটোটেম্পু শ্রমিক ইউনিয়ন এর সমাবেশ ও র‌্যালী কর্মসূচীতে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে হারুনুর রশীদ উপরোক্ত কথা বলেন।
চট্টগ্রাম অটোরিকশা-অটোটেম্পু শ্রমিক ইউনিয়ন ১৪৪১ এর উদ্যোগে মহান মে ও আর্ন্তজাতিক শ্রমিক দিবস উপলক্ষ্যে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও শ্রমিক সমাবেশ সকাল ৯টায় চট্টগ্রাম নগরীর সিআরবি ৭রাস্তার মোড়ে অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিয়নের সভাপতি হাজী কামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদের সঞ্চানায় অনুষ্ঠিত বিশাল শ্রমিক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, সহসভাপতি বিপ্লব, এসিস্টেন্ট সেক্রেটারী মো: ওমরফ ফারুক, সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, লাইন সম্পাদক পেয়ারু মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, আলী আকবর, হাসান মোল্লা, মো: মানিক প্রমুখ। মেট্টো একসের চেয়ারম্যান খন্দকার আবু জাফর রিমন, চট্টগ্রামের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওয়জি উল্লাহ, মুভার বিডি প্র:এপসের এম এ ফারুক ও মো: ইমরান।
সমাবেশে হারুনুর রশীদ বলেন, ম্যাক্সিমা অটোটেম্পুর রোড পারমিট ইস্যু করার জন্য সংশ্লিষ্টদের দায়িত্ব নিতে হবে। অন্যতায় কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচী দেওয়ারও ইঙ্গিত দেন। তিনি বলেন সার্ভিস রুল সংশোধন করে চট্টগ্রাম নগরীতে ৪হাজার গাড়ী বরাদ্দ নিশ্চিত করার মাধ্যমে বেকার চালকদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।
তিনি আরো বলেন, ইউনিয়নের পেশকৃত ১২ দফা দাবী মেনে নিয়ে অটোরিকশা চালকদের মর্যাদাপূর্ণ জীবন যাপনের ব্যবস্থা করতে হবে। অটোরিকশা চালকদের উপর পুলিশের যত্রতত্র মামলা,হামলা দিয়ে হয়রানী বন্ধ করতে হবে। নো পার্কিং মামলা বন্ধ করে নগরীতে পার্কিং ব্যবস্থা নিশ্চিত করার জন্য তিনি পুলিশ ও মেয়র মহোদয়ের প্রতি আহবান জানান।
সভাপতির বক্তব্যে হাজী কামাল উদ্দিন বলেন, আজ থেকে ১৩২ বছর আগে ১৮৮৬ সালের এই দিনে শ্রমিকরা আট ঘণ্টা কাজের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রের সব শিল্পাঞ্চলে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিলেন শ্রমজীবি মানুষেরা। এতে প্রায় ৩ লাখ শ্রমিক অংশ নেন। শ্রমিক সমাবেশকে ঘিরে শিকাগো শহরের হে মার্কেট রূপ নেয় শ্রমিকের বিক্ষোভ সমুদ্রে। শ্রমিকদের আন্দোলন দমন করতে সেদিন সমাবেশে পুলিশ এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। এতে ১০ শ্রমিক প্রাণ হারান। এছাড়া গ্রেফতার করা হয় অনেককে। আন্দোলনে অংশ নেওয়ার অপরাধে ৬ শ্রমিককে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে দেয় সে সময়কার শাসকগোষ্ঠী। কারাগারে বন্দি অবস্থায় এক শ্রমিক আত্মহননও করেন। এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পরপরই হে মার্কেটের ওই শ্রমিক বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে সারা বিশ্বে। গড়ে ওঠে শ্রমিক-জনতার বৃহত্তর ঐক্য। অবশেষে তীব্র আন্দোলনের মুখে শ্রমিকদের দৈনিক আট ঘণ্টা কাজের দাবি মেনে নিতে বাধ্য হয় যুক্তরাষ্ট্র সরকার। তিনি শ্রমজীবি মানুষের দাবী মেনে নিয়ে তাদের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান অন্যথায় সেই রক্তঝরা মে’র মতো শ্রমিকরা সারাদেশে আন্দোলনের ঝাপিয়ে পড়তে বাধ্য হবে।

মে দিবস উপলক্ষে অশোক বুড্ডিষ্ট কমিউনিটি:: মহান মে দিবস উপলক্ষে অশোক বুড্ডিষ্ট কমিউনিটি উদ্যাগে শ্রমিকদের মাঝে তরমুজ বিতরন করেন। তরমুজ বিতরণকালে সমবেতদের উদ্যাশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বক্তারা বলেন, শ্রমিকদের রক্ত ও ঘামে বিশ্ব সভ্যতা গড়ে উঠেছে। শ্রমিকরা দৃপ্ত শপথে বলিয়ান হয়ে উৎসব করার দিন। শ্রমিকদের অবহেলা বা তাদেরকে অধিকার থেকে বঞ্চিত করার চেষ্টা শুভ লক্ষণ নয়। মে দিবস শ্রমিকদের অধিকার বুঝে নেয়ার দিন।
তরমুজ বিতরণকালে উদ্বোধন করেন সংগঠনের উপদেষ্টা সিজার বড়–য়া, প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোরশেদ আলম, সাংবাদিক সেতু বড়–য়া, যুবনেতা ইকবাল আহমেদ, নুরুল আনোয়ার রিপন, হাবীব খান, শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল রহিম, বিধান রায়, মো. জুয়েল, মো. তাহের, অশোক বুড্ডিট কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দুর্জয় বড়–য়া, অভি বড়–য়া, টিপু বড়–য়া, রকি বড়–য়া, অপেক্ষা বড়–য়া, পাপিয়া বড়–য়া, দীপন বড়–য়া, প্রান্ত বড়–য়া, শান্ত বড়–য়া, দীপ্ত বড়–য়া, সজীব বড়–য়া, অকিব মুৎসুদ্দী, ইমন বড়–য়া, রাজেশ বড়–য়া, পংকজ বড়–য়া প্রমুখ।

 

 


আরোও সংবাদ