পাথর সাইজের শিলা ফাইনালে নিলো শ্রীলঙ্কা দলকে

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৩ এপ্রিল , ২০১৪ সময় ১০:৪৮ অপরাহ্ণ

শেরেবাংলা স্টেডিয়াম ঢেকে গেছে সাদা বরফখণ্ডে,শ্রীলঙ্কা-ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেমিফাইনাল ম্যাচ বন্ধ,
পাথর সাইজের শিলা বৃষ্টিপাথর সাইজের শিলা,হঠাৎ কালবৈশাখীর হানা, ভারী বৃষ্টি।মিরপুরে শেরেবাংলা স্টেডিয়াম ঢেকে গেছে সাদা বরফখণ্ডে। প্রকৃতির বাগড়ায় থেমে গেছে শ্রীলঙ্কা-ওয়েস্ট ইন্ডিজের সেমিফাইনাল ম্যাচ। ম্যাচ যদি ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে নিষ্পত্তি, উইন্ডিজের কপালে পরাজয়ই লেখা রয়েছে। কারণ ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে শ্রীলঙ্কা এগিয়ে রয়েছে ২৭ রানে।ফাইনালে শ্রীলঙ্কা

এর আগে ১৬১ রানের লক্ষ্যে প্রথম ওভারেই ১৭ রান তোলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এর পরই মালিঙ্গার জোড়া আঘাত। ৪.৫ ওভারে ২৮ রান তুলতেই ফিরে যান দুই ওপেনার ডোয়াইন স্মিথ (১৭) ও ক্রিস গেইল (৩)। দুজনেই মালিঙ্গার বলে পরিষ্কার বোল্ড। কিছু পরে প্রসন্নের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরেছেন লেন্ডল সিমন্স (৪)। ডোয়াইন ব্রাভে কিছুটা স্বপ্ন দেখালেও কুলাসেকারার বলে তিনিও ফিরেছেন ৩০ করে। বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হওয়ার আগে উইন্ডিজের সংগ্রহ ১৩.৫ ওভারে ৪ উইকেটে ৮০। প্রয়োজন ৩৭ বলে ৮১, হাতে রয়েছে ৬ উইকেট। এ অবস্থায় ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ম্যাচ নিষ্পত্তি হলে তাতে শেষ হাসি হাসবে শ্রীলঙ্কাই।

কলোম্বোয় ২০১২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৫.২ ওভারে ৪ উইকেটে তুলল ৮৭। তার পরও ম্যাচ জেতার পুঁজি পেয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ম্যাচও জিতেছিল তারা। দু বছর পর আবারও দুদল মুখোমুখি। এবার সেমিফাইনালে। প্রথমে ব্যাট করেছে শ্রীলঙ্কা। ১৩.৩ ওভারে লঙ্কানদের সংগ্রহ ছিল ৪ উইকেটে ৯১। তবুও লড়াই করার পুঁজি পেয়েছে শ্রীলঙ্কা। ২০ ওভারে লঙ্কানদের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৬০। শেষ ৬ ওভারেই উঠেছে ৬৩। এ সময় উইকেট পড়েছে মাত্র ২টি।

শ্রীলঙ্কাকে দারুণ শুরু এনে দেন কুশল পেরেরা ও তিলকরত্নে দিলশান। উদ্বোধনী জুটিতে ৪ ওভারে আসে ৪১। এরপর ছোটোখাটো একটি বিপর্যয়। আট রানের মধ্যে তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ফেলে শ্রীলঙ্কা, যাদের দুজন কুমার সাঙ্গাকারা ও মাহেলা জয়াবর্ধনে! সেটি ভালোভাবেই সামাল দেন লাহিরু থিরিমান্নে ও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। ওভারে সাড়ে আটের বেশি করে তোলা ৩০ রানের জুটি গড়েন দুজনে। লঙ্কান ইনিংসের সর্বোচ্চ ৪৪ এসেছে থিরিমান্নের ব্যাট থেকে। তবে শেষ দিকে ম্যাথুস-ঝড়ের কারণেই চ্যালেঞ্জিং স্কোর পেয়েছে লঙ্কানরা। রাসেলের বলে ফেরার আগে ম্যাথুস করেছেন ২৩ বলে ৪০। উইন্ডিজ বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ২ উইকেট পেয়েছেন সান্টোকি।