শেখ হাসিনা গনতন্ত্র ও সংবিধান রক্ষা এবং উন্নয়নের অগ্রদূত

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শনিবার, ৬ জানুয়ারি , ২০১৮ সময় ১০:৫০ অপরাহ্ণ

‘গনতন্ত্র ও সংবিধান’ শীর্ষক এক আলোচনা সভা ৫ জানুয়ারি ২০১৮ খ্রি. শুক্রবার সন্ধ্যায় পতেঙ্গা সী-বিচে উন্মুক্ত স্থানে অনুষ্ঠিত হয়। বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চারনেতা স্মৃতি পরিষদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় ১৫০ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুর রহিম। তিনি ‘গনতন্ত্র ও সংবিধান’ শীর্ষক একটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। আলোচনা করেন আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল আলম, ওয়াহিদুল আলম, মোহাম্মদ সেলিম, আওয়ামী যুবলীগের মঈনুল আলম, শিক্ষার্থী মো. পারভেজ, মো. সাইফুল, মো. মানিক, রাশেদ পারভেজ দিপু, আলাউদ্দিন, সাইফুল, রেজা, তুষার, রকি, শান্ত, মিজান, অসি, সোহেল, মাসুদ, সাকিবসহ অন্যরা। আলোচনা সভায় ‘গনতন্ত্র ও সংবিধান’ বিষয়ক প্রবন্ধে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চারনেতা স্মৃতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুর রহিম বলেন, ৩০ লক্ষ শহীদ ও দু’লক্ষাধিক মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন বাংলাদেশে মাত্র সাড়ে বছরের মাথায় গনতন্ত্র হত্যা করে সংবিধান স্থগিত করে সামরিক ও স্বৈরাশাসন কায়েম হয়। যা ছিল স্বাধীনতার শহীদদের প্রতি অবজ্ঞা ও অশ্রদ্ধা। তিনি বলেন, ১৯৯৬ সন পর্যন্ত নানা কায়দায় বাংলাদেশ পরিচালিত হয় অসংবিধানিক পন্থায়। ১৯৯৬ সন থেকে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয় জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে। তিনি আরো বলেন, ২০০৭ ও ২০০৮ সনে কথিত সেনা সমর্থিত এক এগার এর সরকার গনতন্ত্র ও সংবিধানকে অবজ্ঞা করে দেশে নির্যাতন চালায়। ২০০৮ সন থেকে আজোবধি সংবিধান ও গনতন্ত্রের ভিত্তিতে দেশ পরিচালিত হচ্ছে- ফলে দেশ ও জাতি অনেকাংশে স্বস্থিতে আছে। জনাব আবদুর রহিম বলেন, ২০১৪ সনের ৫ জানুয়ারি ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন না হলে দেশে ‘গনতন্ত্র ও সংবিধান আবারো অন্ধকারে ডুবে যেতো। জননেত্রী শেখ হাসিনা গনতন্ত্র ও সংবিধান রক্ষক ও দেশের উন্নয়নের অগ্রদূত। তিনি সকলকে গনতন্ত্র ও সংবিধান রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান।


আরোও সংবাদ