‘শিগগিরই আন্দোলনের নতুন রূপরেখা’

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৪ মার্চ , ২০১৫ সময় ০৭:৪৭ অপরাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টার |
শিগগিরই চলমান সরকারবিরোধী আন্দোলনের নতুন রূপরেখা প্রণয়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন ২০ দলের মুখপাত্র ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব বরকতউল্লাহ বুলু। একইসঙ্গে বিজয় অর্জন না হওয়া পর্যন্ত চলমান আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি। গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বরকতউল্লাহ বুলু বলেন, আইনি শাসনের অবসান, নিয়ন্ত্রিত বিচার ব্যবস্থা, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক দেশব্যাপী তা-ব ও রাষ্ট্রের সকল অঙ্গকে কুটকৌশলে আয়ত্তে নিয়ে অবৈধ ক্ষমতা চিরস্থায়ীকরণের উন্মাদনায় লিপ্ত হয়েছে আওয়ামী লীগ। জাতীয় জীবন অবরুদ্ধ, বাকশালী বন্দিশালায় গণতন্ত্র নামক শব্দটি ক্ষতবিক্ষত। শাসকগোষ্ঠীর অন্ধপ্রতিহিংসা ও ক্ষমতার মোহে দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব বিপন্নপ্রায়। তিনি বলেন, দেশ থেকে সামাজিক ন্যায় বিচার তিরোধানের ফলেই মুক্তিযুদ্ধের সকল অর্জন আজ ধূলিস্যাত হয়ে গেছে। শাসকগোষ্ঠী ক্রসফায়ারের মাধ্যমে দেশব্যাপী ধারাবাহিক গণহত্যা, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী পরিচয়ে অপহরণের পর অস্বীকার, গুম, গণগ্রেপ্তার, মামলা-হামলা ও মানবাধিকার লঙ্ঘন এখন বাংলাদেশে যেন রেওয়াজে পরিণত করেছে। বিএনপির এই যুগ্ম মহাসচিব বলেন, সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের সকল দরজা বন্ধ করে দিয়ে বর্তমান সংবিধানকে মানবিক ও নাগরিক অধিকার হরণের হাতিয়ারে পরিণত করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন, দুর্নীতি দমন কমিশন, বিচার বিভাগ ও রাষ্ট্রের নির্বাহী বিভাগকে পরিণত করা হয়েছে সরকারের অবৈধ আদেশ পালনের প্রতিষ্ঠান রূপে। প্রশাসনে নিরপেক্ষ লোকদের বসানো হচ্ছে ‘ওএসডি’ নামক অপমানজনক ও কর্মহীন পদে। ফলে রাষ্ট্র ক্রমান্বয়ে পরিণত হচ্ছে অযোগ্য, দুর্নীতিবাজ ও লুটেরাদের অভয়ারণ্যে। আন্দোলনের নতুন রূপরেখার ইঙ্গিত দিয়ে বরকতউল্লাহ বুলু বলেন, প্রতিহিংসা ও বিদ্বেষমূলক অপরাজনীতি থেকে বেরিয়ে এসে গণদাবির প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার জন্য দেশের আপামর জনসাধারণকে সঙ্গে নিয়ে ২০ দলীয় জোট আন্দোলন সংগ্রাম অব্যাহত রেখেছে। বিজয় অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন সংগ্রাম চলবে। অচিরেই দেশবাসীর আশা-আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটাতে এবং সরকারকে দাবি মানতে বাধ্য করতে আন্দোলনের নতুন রুপরেখা ও কৌশল প্রত্যক্ষ করবে শাসকগোষ্ঠী। তিনি বলেন, দেশের শতকরা ৯০ ভাগ মানুষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে একটি সুষ্ঠু ও অবাধ জাতীয় নির্বাচন চায়। সমগ্র জাতি আজ সেই লক্ষ্য পূরণের জন্য ঐক্যবদ্ধ হয়ে সংগ্রামে লিপ্ত। জনগণ ন্যায়সঙ্গত আন্দোলনের বিজয় পতাকা উড়াবেই ইনশাআল্লাহ। সালাহউদ্দিন আহমেদকে সন্ধান দেয়ার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদকে গুমের পক্ষকাল অতিক্রান্ত হতে যাচ্ছে। অথচ এ বিষয়ে সরকারের কোন মাথাব্যথা নেই। সারা দেশ থেকে এভাবে বিরোধী দলীয় শ’ শ’ নেতাকর্মীকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন ধরে নিয়ে গিয়ে গায়েব করার ঘটনায় গোটা জাতিকে ভাবিয়ে তুলেছে। অবিলম্বে সালাহউদ্দিন আহমেদের নিখোঁজ নাটকের অবসান ঘটানোর জন্য সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।


আরোও সংবাদ