শিক্ষক ঘাটতির কারণে শিক্ষার মান ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৭ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১১:০৪ পূর্বাহ্ণ

জাতিসংঘের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বিজ্ঞান বিষয়ক সংস্থা, ইউনেস্কো বলছে যে বহুদেশে শিক্ষক ঘাটতির কারণে শিক্ষার মান ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।
শিক্ষক
ইউনেস্কো এবং তার অংশীদাররা ৫ অক্টোবর বিশ্ব শিক্ষক দিবসে যে বার্তাটি তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছে তা হোল শিক্ষকতায় বিনিয়োগই হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বর্পূণ, কেননা, একটি দেশের শিক্ষাব্যবস্থা ততোটাই ভালো হতে পারে যতোটা ভালো সেদেশের শিক্ষকরা।

ইউনেস্কোর ইনিষ্টিটিউট অব ষ্ট্যাষ্টিসটিকসের এক বৈশ্বিক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে তিরানব্বুইটি দেশে শিক্ষকঘাটতি চরমে এবং ২০১৫ সালের মধ্যে বিশ্বে সর্বজনীন প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করতে হলে শ্রেণীকক্ষে আরও চল্লিশ লাখ শিক্ষক প্রয়োজন।

সংস্থা বলছে যে এই বিপুলসংখ্যক শিক্ষক ঘাটতির পাশাপাশি আরেকটি বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে শিক্ষার গুণগত মান। প্রায়শ:ই শিক্ষকরা কোন উপকরণ এবং প্রশিক্ষণ ছাড়াই কাজ করছেন। অথচ, বিশ্বে বর্তমানে প্রায় পঁচিশ কোটি শিশু পড়া বা লেখার মৌলিক দক্ষতা অর্জনে র্ব্যথ বলে জানাচ্ছে ইউনেস্কো।

সংস্থা বলছে যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ যখন ২০১৫-উত্তর উন্নয়ন লক্ষ্য নির্ধারণের কাজ করছে তখন শিক্ষকদের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত।

শিক্ষকরা দেশের জন্য একটি বিনিয়োগ। আজকের শিশু প্রাপ্তবয়সে কোন পরিস্থিতির মুখোমুখি হবে তা যেহেতু কারও পক্ষে আগাম বলে দেওয়া সম্ভব নয়, সেহেতু আজ এবং আগামীকালের শিক্ষকদের এমন জ্ঞান এবং দক্ষতা প্রয়োজন যা তাঁদেরকে ভবিষ্যতের প্রতিটি ছেলেমেয়ের শিক্ষার বহুমুখী চাহিদা মেটানোর যোগ্য করে তোলে।

ইউনেস্কোর মহাপরিচালক, আইরিনা বুকোভা বলছেন যে প্রত্যেকটি শিক্ষার্থীর জন্য পেশাদারিত্বের সাথে প্রশিক্ষিত, প্রতিশ্রুতিবান এবং পর্যাপ্ত সমর্থনপুষ্ট শিক্ষকের ব্যবস্থা করতে ইউনেস্কো এবং তার অংশীদাররা কাজ করছে। মিস বুকোভা বলছেন যে যেসব দেশের শ্রেণীকক্ষে পর্যাপ্ত সংখ্যক প্রশিক্ষিত শিক্ষক নেই সেসব দেশে কোটি কোটি শিশু সর্বজনীন প্রাথমিক শিক্ষা থেকে বঞ্চিত থেকে যাবে।