শহীদ মিনারে আলোক প্রজ্বালন করেছে প্রমা

প্রকাশ:| বুধবার, ১৪ ডিসেম্বর , ২০১৬ সময় ১০:৫৭ অপরাহ্ণ

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আলোক প্রজ্বালন করেছে প্রমা আবৃত্তি সংগঠন। বুধবার (১৪ ডিসেম্বর) বিকেলে শহীদ মিনার সংলগ্ন থিয়েটার ইন্সটিটিউট প্রাঙ্গনে ‘মৃত্যুঞ্জয়ী রাতের শপথ’ শিরোনামে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের সভাপতি রাশেদ হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শহীদজায়া বেগম মুশতারী শফি ও মুক্তিযোদ্ধা গবেষণা কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ডা. মাহফুজুর রহমান।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ পালের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শহীদজায়া বেগম মুশতারী শফি বলেন, চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন স্থানে ছিল অসংখ্য বধ্যভূমি। এখন পাহাড়তলি বধ্যভূমি ছাড়া কোনো বধ্যভূমি নেই। লালখানবাজারে মুক্তিযুদ্ধের একটি স্মৃতিচিহ্ন ছিল। এখন সেটিও নেই। গত ৪৬ বছরে মুক্তিযুদ্ধের ও শহীদদের স্মৃতি বিজড়িত প্রায় সব বধ্যভূমি আমরা হারিয়ে ফেলেছি। এগুলো রক্ষায় কোনো উদ্যোগও নেই। এ সরকারের আমলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে যা প্রশংসনীয়। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিগুলো রক্ষা করতে হবে।

ডা. মাহফুজুর রহমান বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছি। দেশ স্বাধীন করেছি। স্বাধীনতা এনেছি। এখন তরুণ প্রজন্মকে দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে হবে। এ কাজে তাদেরই অগ্রসেনানীর ভূমিকা পালন করতে হবে। তাদের হাতেই বির্নিমাণ হবে নতুন বাংলাদেশের।

রাশেদ হাসান, ১৯৭১ সালে বুদ্ধিজীবীদের হত্যার মাধ্যমে বাঙালি জাতিকে মেধা শূণ্য করার যে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছিল তা আজও থেমে যায়নি। এই স্বাধীন দেশে গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে কবি শামসুর রাহমান, কবি হুমায়ুন আজাদ, লেখক অভিজিৎ রায়, রাজীব হায়দার, প্রকাশক দীপনসহ অনেক মেধাবী প্রগতিশীল মানুষের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। পৃথিবীব্যাপী যে অশুভ শক্তির উত্থান তার বিরুদ্ধে শুভবোধ সম্পন্ন মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তা না হলে পরাজিত শক্তির নীল নকশা নসাৎ করা যাবে না।

সভাশেষে প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের সদস্য মনজুর মুন্না, রাবেয়া সুলতানা, তামান্না ইসলাম ও আচরারুল ইসলাম, বাচিক শিল্পচর্চা কেন্দ্র কণ্ঠনীড়ের সভাপতি সেলিম রেজা সাগর, চট্টগ্রাম আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি এহেতেশামুল হক ফরহাদ, বর্ণ আবৃত্তি পাঠশালার সভাপতি সাইদুল করিম সাজু, বিভাস আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের গৌরী নন্দিতা, স্বরনন্দন এর পূজা বিশ্বাস ও দীপ্ত চক্রবর্ত্তী একক আবৃত্তি পরিবেশন করেন।

বৃন্দ আবৃত্তি ‘চিরকালের প্রমিথিউসম’পরিবেশন করেন প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের সদস্যরা। এরপর শহীদ মিনারে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে সমবেতরা দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করেন। সবশেষে মোমবাতি জ্বালিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।