শহীদ বেলাল-মানিক-মঈনুল চিরন্তর প্রেরণের উৎস

প্রকাশ:| সোমবার, ২২ মে , ২০১৭ সময় ১০:৫৫ অপরাহ্ণ

স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে পুলিশের নির্মমভাবে নিহত শহীদ হাসানুল করিম মানিক এবং সন্ত্রাসী চক্রের হাতে নিহত শহীদ রবিউল হোসেন বেলাল ও এম.ই.এস কলেজ ছাত্রসংদের সাবেক জি.এস মঈনুল করিমের স্মরণে বেলাল-মানিক-মঈনুল স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে স্মরণসভা আজ বিকাল ৫ঘটিকায় লাভ লেইনস্থ স্মরনিকা কমিউনিটি সেন্টারে কেন্দ্রীয় যুবলীগের উপ-অর্থ সম্পাদক ও এম.ই.এস কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক জি.এস হেলাল আকবর চৌধুরী বাবরের সভাপতিত্বে এবং এম.ই.এস কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় ভৌমিক কংকনের সঞ্চালনায় এক স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম আমিন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মফিজুর রহমান, সাবেক কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগের নেতা আলহাজ্ব মামুন উর রশিদ মামুন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আইয়ুব আলী, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের পরিবেশ সম্পাদক মশিউর রহমান, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. শাহজাহান, প্রয়াত ছাত্রনেতা মঈনুল করিমের ভাই রেজাউল করিম, আওয়ামী লীগ নেতা মিথুন বড়–য়া, শাহনেওয়াজ চৌধুরী, সরফরাজ নেওয়াজ মাসুদ, এ.এম. কুতুব উদ্দিন চৌধুরী, নাছির উদ্দিন ফাহিম, শিবু প্রসাদ চৌধুরী, পংকজ রায়, সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা আজিজুর রহমান, হাবিবুর রহমান তারেক, মেজবাহ উদ্দিন মোরশেদ, বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি সুজন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য ইয়াছিন আরাফাত কচি, রাহুল বড়–য়া রুমেল, নগর ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি একরামুল হক রাসেল, চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মনিরুল ইসলাম, মহসীন কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মায়মুন উদ্দিন মামুন প্রমুখ।
এ সময় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন বলেন, চট্টগ্রামের ওমরগণি এম.্ই.এস কলেজ বাংলাদেশ গণতান্ত্রের সংগ্রামে এক ঐতিহ্যবাহী পীঠস্থান। স্বৈরাসার ও সাম্প্রদায়িক বিরোধী আন্দোলনে এ কলেজে ছাত্ররা অকাতরে জীবন দান করেছেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী নেতা সাইফুদ্দীন রবি, চন্দন ধর, এড. ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, কাউন্সিলর জহরলাল চৌধুরী, গৌরাঙ্গ চন্দ্র ঘোষ, অমল মিত্র, কাউন্সিলর সলিম উল্লাহ বাচ্চু, বায়েজিদ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছগীর আহমদ, বক্সিরহাট ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল্লাহ বাহাদুর, জসীম উদ্দিন চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা শাহাজাহান চৌধুরী, সীমান্ত তালুকদার, আবদুল্লাহ আল মামুন, মো. সেলিম উদ্দিন, সাবেক ভি.সি মো. ইউনুছ, কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হাসান মনছুর, নাজমুল হাসান, সাবেক ছাত্রনেতা এম.আর আজিম, মো. সালাহ উদ্দিন, নাছির হায়দার বাবুল, সুরঞ্জিত বড়–য়া লাভু, হাজী সেলিম, গাজী জাফর উল্লাহ, পিংকু দেব রায়, মো.্ ইদ্রিস, মহানগর যুবলীগ নেতা মো. হেলাল উদ্দিন, নুরুল আনোয়ার, হাবিবুল্লাহ নাহিদ, রাজিব দত্ত রিংকু, আসহাব রসুল জাহেদ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা দেবাশীষ নাথ দেবু, শ্রমিক নেতা আবুল হোসেন আবু, এরশাদ হোসেন, ফজলুল কবির সোহেল, সৌরভ বিকাশ বড়–য়া বিতান, আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব বিশ্বাস সাজু, আরওঙ্গজেব শিবলী, ইকবাল হোসেন ইমু, মো. মোরশেদ আলম, মনোয়ার আলম নোভেল, মোসলেহ উদ্দিন শিবলী, ওমর খৈয়ম তৈয়ব, এম. মাহামুদ রনি, আলী রেজু পিন্টু, আবু সায়েদ সুমন, চবি সহ-সভাপতি রেজাউল হক রুবেল, মো. জাহেদ, হোসেন আহমদ রুবেল, এহসানুল খোকা, অমিত মুহুরী প্রমুখ।