শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মৃত্যু নেই

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২ ডিসেম্বর , ২০১৪ সময় ১০:১৭ অপরাহ্ণ

বিজয় দিবস উদ্যাপন কমিটির মতবিনিময় সভায়-আবদুচছালাম

মহান বিজয় দিবস ১৬ ডিসেম্বরকে সামনে রেখে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাঙালি সংস্কৃতিকে তরুণ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার লক্ষ্যে ১৪, ১৫ ও ১৬ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম মিউনিসিপ্যাল স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে ৩ দিন ব্যাপী অনুষ্ঠান আয়োজনের এক মতবিনিময় সভায় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও বিজয় উদ্যাপন কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবদুচ ছালাম বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মৃত্যু নেই। যুগে যুগে তারা অমর। বীর মুক্তিযোদ্ধারা মরণপন লড়াই করে বাঙালি জাতিকে একটি দেশ, মানচিত্র, স্বাধীনতা ও কথা বলার অধিকার দিয়ে গেছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের যথাযথ সম্মান করতে হবে। শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পরিবারবর্গদের মূল্যায়ন খুব জরুরী। স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শানিত ও জাগরিত রাখার লক্ষ্যে আসুন আমরা সকলে দেশের উন্নয়নে নিজেকে সম্পৃক্ত করি।আজ বিকেল ৩টায় সিডিএ ভবন মিলনায়তনে বিজয় দিবস উদ্যাপন কমিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। মহান বিজয় দিবস উদ্যাপন কমিটির মহাসচিব লায়ন এম শফিউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন কো-চেয়ারম্যান আবদুস সালাম, এ কে জাহেদ চৌধুরী, কাজী মোহাম্মদ আলমগীর, আনোয়ার আজম, মনোয়ার জাহান মনি, মুক্তিযোদ্ধা সুভাষ চন্দ্র চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার আবুল কাশেম, আবু তাহের, মর্জিনা আখতার লুসি, এস. এম শফিকুর রহমান, রিমন মুহুরী, শংকর চৌধুরী, রাখাল চন্দ্র ঘোষ, মুক্তিযোদ্ধা বাদশা মিয়া, ইউনুস মিয়া, আশীষ গুপ্ত, রূপেশ চৌধুরী, ইব্রাহিম খলিল সবুজ, সৈয়দ আলমগীর, মো. ইসহাক মন্টু, আবদুস সাত্তার প্রমুখ।

প্রসঙ্গতঃ বিজয় দিবস উদ্যাপন কমিটির কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে ছোটদের চিত্রাংকন ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা, চট্টগ্রামের বরেণ্য কবিদের কবিতা উৎসব, স্বাধীনতা ও সংগ্রামী দেশাত্মবোধক গান, মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক নাটক মঞ্চায়ন, ৩০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান, মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের বিশেষ বৃত্তি প্রদান। এছাড়া অনুষ্ঠানকে নান্দনিকতা আনার জন্য স্টল বরাদ্দ চলছে। আগ্রহীদের উদ্যাপন কমিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ রইল।