শহীদুল ইসলাম খোকন গুরুতর অসুস্থ

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর , ২০১৫ সময় ১১:২১ অপরাহ্ণ

শহীদুল ইসলাম খোকনখ্যাতিমান চলচ্চিত্র পরিচালক শহীদুল ইসলাম খোকন গুরুতর অসুস্থ হয়ে উত্তরায় আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বর্তমানে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে তিনি মুখগহ্বরের ‘মটর নিউরো ডিজিস’ (এএলএস)-এ আক্রান্ত। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সহ-সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান মানবজমিনকে জানান, দেশ-বিদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে কয়েক দফা চিকিৎসা শেষে তিনি এতদিন বাসাতেই ছিলেন। হঠাৎ আজ তার পারিবারিক সূত্রে জানতে পারি শারীরিক অবস্থার অবনতির কারণে তাকে উত্তরায় আধুনিক হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। এখন সেখানে তিনি লাইফ সাপোর্টে আছেন। আমরা সবাই তার স্স্থুতার জন্য দোয়া প্রার্থনা করছি। উল্লেখ্য, গত ১০ই সেপ্টেম্বর খোকন উন্নত চিকিৎসার আশায় আমেরিকা গিয়েছিলেন। সেখানে তার চিকিৎসার ব্যাপারে আন্তরিকভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন  নায়িকা শাবানা, পরিচালক কবির আনোয়ার, বিএফডিসির সাবেক ল্যাব ইনচার্জ মতিন ও বাংলাদেশী এক দম্পতি সেতু-হ্যাপি। তবে আমেরিকার  ‘বেলভিউ হসপিটাল’-এর চিকিৎসকরা এ রোগের কোন চিকিৎসা নেই বলে তাকে দেশে ফেরত পাঠিয়ে দিয়েছেন। অক্টোবরের  শেষপ্রান্তে দেশে  ফেরার পর গত চার-পাঁচ দিন আগে স্কয়ার হসপিটালে ডা. আরেফিনের তত্ত্বাবধানে শহীদুল ইসলাম খোকনের পেটে অপারেশনের মাধ্যমে টিউব স্থাপন করা হয়। লাইফ সাপোর্টে নেয়ার আগ পর্যন্ত এ টিউব দিয়েই তিন ঘণ্টা পরপর তাকে খাওয়ানো হচ্ছিল। চলচ্চিত্রের প্রতি অদম্য ভালবাসা থেকেই আজ থেকে ১৫ বছর আগে ‘পালাবি কোথায়’ চলচ্চিত্র নির্মাণের সময় অর্থসঙ্কটের কারণে উত্তরার ৬ নম্বর সেক্টরের নিজ বাড়ি বিক্রি করে দিয়েছিলেন খোকন। ‘ঘাতক’, ‘পালাবি কোথায়’, ‘লাল সবুজ’, ‘ম্যাডাম ফুলি’, ‘ভন্ড’সহ দুর্দান্ত সব চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন এ নির্মাতা। তার প্রথম পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘রক্তের বন্দি’। এছাড়া তার নির্মিত অন্যান্য ছবির মধ্যে রয়েছে ‘লড়াকু’, ‘বীরপুরুষ’, ‘বজ্রমুষ্ঠি’, ‘বিপ্লব’, ‘অকর্মা’, ‘সতর্ক শয়তান’, ‘বিষদাঁত’, ‘টপ রংবাজ’, উত্থান পতন’ ইত্যাদি।