শপথ নিলেন ৩ মন্ত্রী, ২ প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই , ২০১৫ সময় ০৭:১৭ অপরাহ্ণ

৩ মন্ত্রী ও ২ প্রতিমন্ত্রীমন্ত্রিসভার নতুন সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন নুরুল ইসলাম বিএসসি, তারানা হালিম এবং নুরুজ্জামান আহমেদ। তাদের মধ্যে নুরুল ইসলাম বিএসসি পূর্ণ মন্ত্রী এবং বাকি দুইজন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। এছাড়া, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এবং তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। সন্ধ্যা সোয়া ছয়টার দিকে বঙ্গভবনে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীদের শপথবাক্য পাঠ করান। এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ মন্ত্রিসভার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে গত বছরের ৫ই জানুয়ারির নির্বাচনের পর ১২ই জানুয়ারি শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করা হয়। এতে প্রধানমন্ত্রী ছাড়া ২৯ জন মন্ত্রী, ১৭ প্রতিমন্ত্রী এবং দু’জন উপমন্ত্রী ছিলেন। এরপর একই বছরের ২৬শে ফেব্রুয়ারি খালি থাকা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব পান এ এইচ মাহমুদ আলী ও পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান মো. নজরুল ইসলাম হিরু। অপরদিকে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবকে সরিয়ে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়। এরপর হজ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য গত বছরের ১২ অক্টোবর ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে অপসারণ করা হয়। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে অব্যাহতি দিয়ে দপ্তরবিহীন মন্ত্রী করা হয়েছে। নতুন এলজিআরডি মন্ত্রী করা হয়েছে ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন। পাশাপাশি তিনি প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বও সামলাবেন। এখন মন্ত্রিসভায় মন্ত্রীর সংখ্যা ২৯, উপদেষ্টা ৫ ও প্রতিমন্ত্রীর সংখ্যা ১৮ জন। প্রধানমন্ত্রী ছাড়া মন্ত্রিসভার মোট সদস্য ৫৩ (উপদেষ্টাসহ) জন। বর্তমানে ডাক, তার ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে কোন মন্ত্রী নেই। অন্যদিকে ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন দুটি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে আছেন। তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়েও কোন মন্ত্রী নেই। তবে প্রতিমন্ত্রী আছেন। বর্তমান মন্ত্রিসভায় ডাক ও টেলিযোগাযোগ, স্বরাষ্ট্র, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রী নেই। তাই নতুন মন্ত্রীদের মধ্যে প্রবাসীকল্যাণ এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে।