শত বাঁধা উপেক্ষা করে এগিয়ে চলছে পেকুয়া উপজেলা ছাত্রলীগ

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৫ জানুয়ারি , ২০১৬ সময় ১১:২৭ অপরাহ্ণ

ছাত্রলীগ
পেকুয়া প্রতিনিধি
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এশিয়া মহাদেশের একটি অতিহ্যবাহি ছাত্র সংগঠন। মহান নেতা জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া সংগঠন এ ছাত্রলীগ। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে এ ছাত্র সংগঠন এর নেতাকর্মীরা রেখেছেন অসমান্য অবদান। যার ধারাবাহিকতা রয়েছে এখনো। রয়েছে বর্তমান বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সভানেত্রী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ডিজিটাল ২০২১ বাস্তবায়নে শত বাঁধা উপেক্ষা করে এগিয়ে চলছে পেকুয়া উপজেলা ছাত্রলীগ।

বিএনপি-জামায়াতের শক্তিশালী ঘাটি হিসাবে পরিচিত এ পেকুয়ায় বর্তমান ছাত্রলীগের আহবায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন মেধাবী ছাত্রনেতা সালাউদ্দিন মাহমুদ। তার সাথে সংগঠনে রয়েছে অসংখ্য মেধাবী ছাত্র। সে দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে উপজেলার ৭ ইউনিয়ন, ২টি কলেজ, মাদ্রাসাসহ ৬৩টি ওয়ার্ড কমিটি গঠন করে পেকুয়া উপজেলাকে ছাত্রলীগের ঘাটি হিসাবে পরিচিত করেছেন। যার প্রমান পেকুয়া উপকূলীয় জিয়াউর কলেজ, বিএমআই কলেজ। ছাত্রদলের শক্তশালী ঘাটি হিসাবে পরিচিত এ কলেজ দুটি থেকে তাদের বিতাড়িত করে ছাত্রলীগের শক্তিশালী কমিটি গঠন করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন।

জানা গেছে, কলেজের দপ্তরি থেকে শুরু করে অধ্যক্ষ পর্যন্ত ছিল বিএনপি ছাত্রদল পূজনীয়। তাদের দাবী ধাওয়া পূরণ ছিল শতকরা একশত ভাগ। আর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের রাখা হতো সব সময় বঞ্চিত। গত এইচএসসির টেষ্ট পরিক্ষায় অনৈতিকভাবে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের অকৃতকার্য করে দেয়। যার কারনে কলেজ অধ্যক্ষকে অবরুদ্ধ করে রেখেছিল সাধারণ শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। যা বিভিন্ন মিডিয়ায় সংবাদ হলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। আর ওই বিষয়টি দ্রুত সামাধানের জন্য বর্তমান ছাত্রলীগের আহবায়ক সালাউদ্দিন মাহমুদ দ্রুত উদ্দেগ গ্রহন করেন। পরে রুদ্ধতার এক বৈঠকে ছাত্রলীগের সব দাবী ধাওয়া কলেজ কর্তৃপক্ষ মেনে নিলে কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আনন্দ উল্লাস করে সালাউদ্দিন মাহমুদকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন।

এভাবে প্রত্যেকটি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের পাশে সালাউদ্দিন মাহমুদ সব সময় ছাড়া দেওয়ায় পেকুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের ঘাটি হিসাবে পরিণিত হয়েছে। পেকুয়া উপজেলার মাটি ছাত্রলীগের ঘাটি হিসাবে সর্বত্র আলোচিত হচ্ছে।
সালাউদ্দিন মাহমুদ বলেন, আমি পেকুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে প্রকৃত ছাত্রদের সংগঠিত করে প্রতিটি ইউনিয়ন, কলেজ ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন করেছি। বর্তমান জেলা কমিটি আমাকে যে নির্দেশনা দিয়েছেন সে মোতাবেক সংগঠনের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি।


আরোও সংবাদ