লাখো পর্যটকে ভরপুর কক্সবাজার

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৪ আগস্ট , ২০১৮ সময় ১০:২২ পূর্বাহ্ণ

বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকত কক্সবাজার এখন লাখো পর্যটকে ভরপুর। উত্তাল সমুদ্রে গোসল, বালুচরে দৌড়ঝাঁপের পাশাপাশি তাঁরা ছুটে বেড়াচ্ছেন দরিয়ানগর পর্যটনপল্লি, হিমছড়ি ঝরনা, পাথুরে সৈকত ইনানী, টেকনাফ সৈকত, মাথিন কূপ, জালিয়ারদিয়া, মিয়ানমার সীমান্ত। কেউ যাচ্ছেন রামুর বৌদ্ধপল্লি ও চকরিয়ার ডুলাহাজারা সাফারি পার্ক দেখতে। কিন্তু বৈরী পরিবেশের কারণে বঙ্গোপসাগর উত্তাল থাকায় লোকজন প্রবালদ্বীপ সেন্ট মার্টিন ও মহেশখালীর সোনাদিয়া ও আদিনাথ মন্দির দেখা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। কারণ নৌচলাচল বন্ধ আছে।

হোটেলমালিকেরা জানান, ঈদের দ্বিতীয় দিন আজ সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সৈকতে সমবেত হয়েছেন লাখো পর্যটক। তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে স্থানীয় আরও ৫০ হাজার মানুষ। সব মিলিয়ে পাঁচ কিলোমিটারের বিশাল সৈকত পর্যটকে ভরে গেছে। আগামী শনিবার পর্যন্ত অন্তত পাঁচ লাখ পর্যটক সৈকতে ভ্রমণে থাকবেন বলে আশা হোটেলমালিকদের।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সৈকতের লাবণী পয়েন্টে গিয়ে দেখা গেছে, হাজার হাজার পর্যটক কোমরসমান পানিতে নেমে গোসল করছেন। উত্তাল সাগরে ঢেউয়ের ধাক্কায় কোনো পর্যটক যেন সমুদ্রে ভেসে না যান, সে জন্য লাইফগার্ডের কর্মী, ডুবুরি ও ট্যুরিস্ট পুলিশ লোকজনকে সতর্ক করছেন। ভাটার সময় গোসলে নামলে স্রোতের টানে লোকজন গভীর সাগরে ভেসে যেতে পারে, সে ব্যাপারে লোকজনকে সতর্ক করতে বালুচরে উড়ানো হচ্ছে লাল পতাকা। লাল পতাকা উড়তে দেখা গেলে গোসলে নামা বিপদ। আর জোয়ারের সময় গোসল নিরাপদ। এ সময় উড়ানো হয় সবুজ পতাকা।