লঙ্কানদের গুটিয়ে ৯০ রানের জয়

প্রকাশ:| শনিবার, ২৫ মার্চ , ২০১৭ সময় ১১:০৬ অপরাহ্ণ

শ্রীলঙ্কার কোনো মাঠে প্রথমে ব্যাট করে ৩০০ তুলে কেউ হারেনি। ম্যাচ তো অর্ধেক পথেই শেষ!

শ্রীলঙ্কাকে নতুন ইতিহাস তৈরি করতেও দিল না বাংলাদেশ। ডাম্বুলায় শ্রীলঙ্কাকে ৯০ রানে হারিয়ে মাশরাফিরা ওয়ানডে সিরিজ শুরু করলেন জয় দিয়েই। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের আগের চারটি জয় ছিল উইকেটের ব্যবধানে। প্রথমবারের মতো রানের ব্যবধানে হারালেন মাশরাফিরা। ৪৫.১ ওভারে ২৩৪ রানে অলআউট হয়েছে শ্রীলঙ্কা।
৩২৫ রান তাড়া করতে নেমে স্কোরবোর্ডে কোনো রান না তুলতেই মাশরাফি বিন মুর্তজার করা প্রথম ওভারেই এলবিডব্লু গুনাথিলাকা। ঘুরে দাঁড়াবে কী, বাংলাদেশের বোলারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে আরও চাপে শ্রীলঙ্কা। ১১ ওভারে ৩১ রানে নেই ৩ উইকেট। কেন দেশ থেকে কেন তাঁকে উড়িয়ে নেওয়া হয়েছে, বোঝালেন মেহেদী হাসান মিরাজ। কুশল মেন্ডিসকে (৪) আউট করেছেন। ফিরিয়েছেন শ্রীলঙ্কার ইনিংসে একমাত্র ফিফটি পাওয়া দিনেশ চান্ডিমালকেও। ২৮.৫ ওভারে ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর সব সম্ভাবনা যেন শেষ করে দিল বাংলাদেশ। ১২১ রানে ৫ উইকেট নেই শ্রীলঙ্কার।
একটা সময় বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে এমন ছবি দেখা যেত। প্রতিপক্ষের দেওয়া বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দ্রুত উইকেট হারিয়ে পরে সম্মানজনক হারের জন্য খেলা। আজ শ্রীলঙ্কার ব্যাটিংয়ে সেই ছবিটাই যেন ফুটে উঠল। ঝিমিয়ে পড়া ম্যাচটায় রোমাঞ্চ ছড়াল থিসারা পেরেরার ঝোড়ো ব্যাটিং। বিপিএলের সৌজন্যে বাংলাদেশের বোলারদের তাঁর ভালোই চেনা। সেটিই কাজে লাগালেন পেরেরা। আড়াই বছর পর পেলেন ওয়ানডে ফিফটি।
তাঁকে ফিরিয়েই ইনিংসের সমাপ্তি টানলেন মোস্তাফিজ। ৫৬ রানে ৩ উইকেট নিয়ে এই বাঁ হাতিই দলের সেরা বোলার। মাশরাফি ও মিরাজ নিয়েছেন দুটি করে উইকেট। একটি করে উইকেট সাকিব ও তাসকিনের।
এর আগে বাংলাদেশ ৫ উইকেটে করে ৩২৪ রান। তাতেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ নিজেদের সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটা নতুন করে লেখাল। শুরু থেকে একপ্রান্ত ধরে রেখে খেলে তামিম ইকবালই রাখলেন মূল ভূমিকা। ১৪২ বলের ইনিংসটায় মেরেছেন ১৫টি চার, ছয় একটি। ৪৮তম ওভারে আউট হওয়ার আগে বাংলাদেশকে দিয়ে গেছেন ৩০০-র গতিপথ। যে পথ ধরেই বাংলাদেশ পেয়েছে দুর্দান্ত এক জয়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ৩২৪/৫ (তামিম ১২৭, সাকিব ৭২, সাব্বির ৫৪, মোসাদ্দেক ২৪*, মাহমুদউল্লাহ ১৩*; লাকমাল ২/৪৫, গুনারত্নে ১/৪০, সান্দাকান ১/৪৩)।
শ্রীলঙ্কা: ৪৫.১ ওভারে ২৩৪ (চান্ডিমাল ৫৯, পেরেরা ৫৫, পাথিরানা ৩১, গুনারত্নে ২৪; মোস্তাফিজ ৩/৫৬, মাশরাফি ২/৩৫, মেহেদী ২/৪৩, সাকিব ১/৩৩, তাসকিন ১/৪১, মোসাদ্দেক ০/২১)।
ফল: বাংলাদেশ ৯০ রানে জয়ী।