র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তারেকসহ নিহত ২

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১ আগস্ট , ২০১৩ সময় ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ

যুবদল নেতা রিয়াজউদ্দিন খান মিল্কি হত্যার প্রধান আসামি জাহিদ সিদ্দিকী তারেক র‌্যাবের হাত থেকে পালানোর সময় milki tareq-‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন।

বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর উত্তরায় একটি হাসপাতাল থেকে থানায় নেয়ার পথে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, তারেককে তার অনুসারীরা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধ শুরু হয়। এসময় তারেক ও তার এক অনুসারী গুলিতে নিহত হয়। দুই র‌্যাব সদস্যও আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

এদিকে সোমবার রাতে মাত্র ১৪ সেকেন্ডে এ ভয়ঙ্কর মিল্কি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। মিল্কি হত্যার এ মর্মান্তিক দৃশ্য প্রত্যক্ষ করেন মার্কেটের ক্রেতা ও পথচারীরা। মিশন শেষ করে মোটরবাইকে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে চার যুবক। সোমবার মধ্যরাতের শ্বাসরুদ্ধকর এই ১৪ সেকেন্ডের দৃশ্যটি ধরা পড়ে শপার্স ওয়ার্ল্ডের ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরায়। হত্যাকাণ্ডের পরপরই ভিডিও ফুটেজটি জব্দ করে র‌্যাব।

শপার্স ওয়াল্ডের সিসি ক্যামেরায় ধারণ করা চিত্রে দেখা যায়, প্রাইভেটকার থেকে মিল্কি নামার পর সাদা পাজামা-পাঞ্জাবি ও টুপি পরা এক যুবক বাম কানে মোবাইলে কথা বলতে বলতে মিল্কির সামনে এসে ডান হাতে ছোট আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে প্রথমে একটি গুলি করেন। গুলিবিদ্ধ মিল্কি বাম দিকে হেলে মাটিতে পড়ে হামাগুঁড়ি দিতে থাকেন। ওই সময় ওই যুবক মিল্কিকে লক্ষ্য করে আরও সাত/আটটি গুলি ছোঁড়েন। এরপর পেছন থেকে এক যুবক মোটর সাইকেল চালিয়ে এলে গুলিবর্ষণকারী যুবক ওই মোটর সাইকেলের পেছনে বসে চলে যায়। ওই সময় আরেক যুবককেও গুলি ছুড়তে দেখা যায়।

সাদা পাঞ্জাবি পরা যে যুবকটিকে গুলি ছুড়তে দেখা যায়, সেই ব্যক্তিটি ছিল তারেক। কিলিং মিশনে সরাসরি অংশগ্রহণকারী একজনের গুলিতে তারেক আহত হয়। তার সহযোগীরা গুলিবিদ্ধ তারেককে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি করে। এ সময় তারেককে মহানগর উত্তর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক চঞ্চলসহ কয়েকজন পাহারা দিচ্ছিল। খবর পেয়ে ওই হাসপাতাল থেকে তারেককে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে অভিযান চালিয়ে আরও পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তারেক হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে। একই সঙ্গে হত্যার সঙ্গে জড়িত অন্যদেরও শনাক্ত করা হয়েছে।

এ মামলায় তুহিনুর রহমান, সৈয়দ মোস্তফা আলী রুমি, মোহাম্মদ রাশেদ মাহামুদ, সাইদুল ইসলাম ওরফে নুরুজ্জামান, মোহাম্মদ সুজন হাওলাদার ও জাহাঙ্গীর মণ্ডল নামের ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।


আরোও সংবাদ