রোহিঙ্গাদের জন্য দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনার আহ্বান জাতিসংঘের

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর , ২০১৭ সময় ০১:২৩ অপরাহ্ণ

সহসাই বাংলাদেশ ছাড়ছে না রোহিঙ্গা শরণার্থীরা। তাই তাদের জন্য দীর্ঘ মেয়াদী ব্যবস্থাপনা পরিকল্পনা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ শরণার্থী বিষয়ক এজেন্সির প্রধান ফিলিপ্পো গ্রান্ডি। তিনি বর্তমান প্রেক্ষাপটকে একটি বিপর্যয়ের শুরু বলে বর্ণনা করেন। বলেন, শরণার্থী শিবিরগুলোতে অতিরক্তি গাদাগাদি করে অবস্থান করায় এবং পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা নাজুক হওয়ায় মহামারী ছড়িয়ে পড়ার উর্বর ক্ষেত্র সৃষ্টি হয়েছে। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি। এতে বলা হয়, ফিলিপ্পো গ্রান্তি জেনেভায় সাংবাদিকদের সঙ্গে এসব কথা বলছিলেন। ২৫ শে আগস্ট রাখাইনে সহিংসতা শুরুর পর প্রায় পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এসব শরণার্থীকে ফেরত পাঠাতে সময় লাগবে বলে মনে হচ্ছে। যদি সহিংসতা বন্ধ হয় তাহলেই হয়তো তাদেরকে ফেরত পাঠানো যাবে। যে মানুষগুলো বাংলাদেশে আছে তাদের জন্য অন্তর্বর্তী একটি সুস্থ সমাধান খুঁজে বের করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ফিলিপ্পো গ্রান্ডি বলেন, এক্ষেত্রে প্রথম বড় চ্যালেঞ্জ হলো মানুষগুলোকে কাদামাটি থেকে সরিয়ে নেয়া। তারা যে হতাশার মধ্যে রয়েছে তা দূর করা। তিনি আরো বলেছেন, ঢাকা সফর করে তিনি এ জন্য জাতিসংঘের সঙ্গে একটি ‘টেকনিক্যাল কমিটি’ গঠনের বিষয়ে আলোচনা করেছেন, যাতে রোহিঙ্গাদের দীর্ঘ মেয়াদি বসবাসের সুযোগ থাকবে। তবে এটা বাস্তব যে, বাংলাদেশ সরকার বিষয়টি অনুধাবন করছে এবং বোঝার চেষ্টা করছে। কিন্তু তাদের পক্ষে এ কাজটা করা সহজ নয়। তিনি এক্ষেত্রে কক্সবাজার এলাকায় স্থানীয় সম্প্রদায়ের মধ্যে আপত্তি বা গররাজির বিষয় তুলে ধরেন। ত্রাণ বিষয়ক সংস্থাগুলো বলছে, কক্সবাজারে তাঁবু দিয়ে বা কাপড় দিয়ে যেসব আশ্রয় গড়ে তোলা হয়েছে তা ছিড়ে যাচ্ছে বা ফেটে যাচ্ছে। শরণার্থীরা পর্যাপ্ত খাবার ও আশ্রয়ের জন্য লড়াই করছে। এর মধ্যেও শরণার্থীদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য দরিদ্র দেশ বাংলাদেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে। ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, দশকের পর দশক রোহিঙ্গারা রাখাইন থেকে পালাচ্ছে। সর্বশেষ স্রোতের মতো তাদের আসা শুরু হয় ২৫ শে আগস্ট সহিংসতা শুরুর পর। আন্তর্জাতিক অভিবাসন বিষয়ক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশনের (আইওএম) হিসাব অনুযায়ী, বাংলাদেশে বর্তমানে কমপক্ষে মোট ৮ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী রয়েছে।