রেলে ফুয়েল চেকার পদের নিয়োগে দুর্নীতির মামলায় ইউসুফ আলী মৃধাসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

প্রকাশ:| বুধবার, ৫ ফেব্রুয়ারি , ২০১৪ সময় ০৪:৫২ অপরাহ্ণ

রেলে ফুয়েল চেকার পদের নিয়োগে দুর্নীতির মামলায় রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বরখাস্ত সাবেক জিএম ইউসুফ আলী মৃধাসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। এরমধ্য দিয়ে রেলওয়ের আলোচিত সেই দুর্নীতির ঘটনায় দুদকের দায়ের করা ১২টি মামলায় এই প্রথম বিচার কাজ শুরু হয়েছে।

বুধবার দুপুরে মহানগর দায়রা জজ এস এম মজিবুর রহমানের আদালত শুনানি শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী শুনানীর দিন তাদের বিচার শুরু হবে।

মৃধা ছাড়া অন্য আসামিরা হলেন, পূর্বাঞ্চলের বরখাস্ত জ্যেষ্ঠ সমাজকল্যাণ কর্মকর্তা গোলাম কিবরিয়া, অতিরিক্ত প্রধান যন্ত্র প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান, আবুল কাশেম ও আনিসুর রহমান। এরা সবাই পলাতক রয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে দুদকের বিশেষ পিপি মাহমুদুল হক বাংলামেইলকে বলেন, ‘রেলের ফুয়েল চেকার পদে নিয়োগে দুর্নীতির মামলায় ইউসুফ আলী মৃধাসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। এর মধ্য দিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে পরবর্তী ধার্য দিনে বিচার শুরু হবে। মৃধা ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে রেলে নিয়োগে দুর্নীতির প্রায় ১২টি মামলা রয়েছে। এই প্রথম তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করলেন আদালত।’

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ৯ এপ্রিল তৎকালীন রেলমন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের বাসায় যাওয়ার পথে বিজিবি গেটে টাকার বস্তাসহ আটক হন মৃধা ও সুরঞ্জিতের সাবেক এপিএস ও রেলওয়ের নিরাপত্তা কর্মকতা এনামুল। এ ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) তদন্তের পর বিভিন্ন অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে পৃথকভাবে ১২টি মামলা দায়ের করে দুদক।

এরমধ্যে ২০১২ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলে রেলের ফুয়েল চেকার পদের নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগে দুদক প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক এস এম রাশেদুর রেজা বাদী হয়ে নগরীর কোতোয়ালী থানায় মামলাটি দায়ের করেন। তদন্ত শেষে গত ১৮ আগস্ট মৃধাসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন দুদক। পরে পলাতক পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে ২০ অক্টোবর গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। বর্তমানে মহানগর দায়রা জজ আদালতে মামলাটির বিচার শুরু হয়েছে।