রূপচর্চার জরুরি কিছু টিপস

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ০২:১৪ পূর্বাহ্ণ

রূপচর্চা; শব্দটা শুনলেই মনে হবে এই মুহূর্তে নিজেকে কেমন দেখাচ্ছে? নয়তো মনে হবে ঘরে বসে একটু সাজাই নিজেকে? আবার গুগলে সার্চ করবেন কী ব্যবহারে সুন্দর দেখা যাবে? ওহ! কী ঝামেলা? ঠিক আছে এবার আসি মূল কথায়।

রূপচর্চায় অনেক উপায়ই তো আমাদের সবার কম-বেশি জানা। তারপরও কখনো কখনো ভুল হয়ে যায়। ঠিক কীভাবে রূপচর্চা করলে তা আমাদের জন্য সঠিক হবে তা অনেক সময় আমরা বুঝতে পারি না। আজ তারই সমাধান হবে। আর তাই নিজেকে রূপের সাগরে ভাসাতে চলুন জেনে নেই রূপচর্চার জরুরি কিছু টিপস।

মুখের ক্লান্তি কাটাতে

মুখের ক্লান্তি কাটাতে ভিটামিন ‘ই’ ক্যাপসুল, পাউরুটি, দুধ মিশিয়ে লাগালে উপকার পাবেন। এছাড়াও চিনি, মধু ও অলিভ-ওয়েল মুখে লাগিয়ে আলতো করে ঘষে মুখ ধুয়ে ফেলতে পারেন।

প্রতিদিন ফুটন্ত পানিতে কয়েকটা তুলসীপাতা ও নিমপাতা ফেলে সেই ভাপটা নিবেন, এতে ত্বক পরিস্কার হয়।

ব্রণের ফুলে ওঠা ভাব কমাতে

নতুন ব্রণ উঠার সময় লালচে হয়ে ফুলে উঠে। এই সময় একটি চামচের পেছনের অংশ গরম পানিতে চুবিয়ে রেখে গরম করে ব্রণের ওপর চেপে ধরুন। ব্রণের ফুলে উঠা ভাব দূর হবে। তবে লক্ষ্য রাখবেন চামচ যেনো খুব বেশি গরম না হয়ে যায়।

ব্রণ দূর করতে

খুব দ্রুত ব্রণ শুকিয়ে ফেলতে পাকা ব্রণের উপর পাতি লেবুর রস লাগান। ব্রণের উপর কর্পূর পানিও লাগাতে পারেন। ১ চা চামচ বেসন, ১ চা চামচ নিমের রস, ১ চা চামচ দুধ, ১ চা চামচ চন্দন ও এক চিমটি হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে নিয়ে পুরো মুখে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে এলে ধুয়ে ফেলুন।

রোদে মুখ পোড়া থেকে মুক্তি

রোদে মুখ পোড়া থেকে মুক্তি পেতে রোদে বেরোনোর সময় অবশ্যই সানস্ক্রিন মেখে নেবেন। এছাড়াও আপনি নারিকেল তেলে কয়েক ফোঁটা পাতিলেবুর রস, ১ চা চামচ মধু, ১ চা চামচ চন্দন বাটা, ১ চা চামচ দুধের সর মিশিয়ে পুরো মুখে লাগান। মিনিট কুড়ি পর ঠান্ডা গোলাপ জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

মুখের দাগ থেকে মুক্তি

মুখের দাগ থেকে মুক্তি পেতে ২ চা চামচ আনারসের রসে ২ চা চামচ ডাবের পানি ও আধা চা চামচ কেওলিন পাউডার মিশিয়ে মুখে লাগান। উপকার পাবেন।

ত্বকের জেল্লা বাড়াতে

ত্বকের জেল্লা বাড়াতে তিলের তেল ও সামান্য লবণ মিশিয়ে গোসলের আগে মুখে ঘষুণ। এতে মরা কোষ ঝরে যাবে আর ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল। নিমপাতা সিদ্ধ করা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এছাড়া দুধ, কাঁচা হলুদ বাটা, বেসম, চিনি ও মধুর প্যাক লাগালেও ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।

প্রতিদিন নিয়ম করে নারিকেলের দুধ, চন্দন ও হলুদ বাটার সঙ্গে গোলাপ জল মিশিয়ে মুখে লাগান এতে ত্বক পরিচ্ছন্ন হবে।

ত্বকের তৈলাক্ততা দূর করতে

যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা প্রতিদিন মুখে চন্দন ও নিমপাতা বাটা, ডিমের সাদা অংশ, পাতিলেবুর রস ও মধু একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগা লাগিয়ে রাখুন। চল্লিশ মিনিট পর ধুয়ে ফেলে গোলাপ জল ও শশার রসের মিশ্রণ লাগান। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

ডাবের পানি, পাউরুটি, হলুদ গুঁড়ো, কমলা লেবুর খোসা বাটা একত্রে মিশিয়ে প্যাক বানিয়ে পুরো মুখে লাগিয়ে রাখুন। চল্লিশ মিনিট পর হাল্কা ঘষে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে ত্বক কোমল ও মসৃণ হবে।

যাদের ত্বক স্বাভাবিক তারা প্রতিদিন পুদিনাপাতা বাটা, সামান্য টকদই, ও মুলতানি মাটি একসাথে মিশিয়ে মুখে লাগাবেন। আধ ঘন্টা পর মুখ ধুয়ে ঠান্ডা শশার রস লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর ধুয়ে ফেলুন।

চোখের নিচের ফোলা দাগ দূর করতে

চোখের নিচে ফোলা ভাব দূর করতে চাইলে রাতে দুটি ষ্টীলের চামচ ফ্রিজে রেখে দিন। সকালে উঠে এই চামচদুটো চোখের নিচে ফোলা অংশে আলতো চাপ দিয়ে ঘষে নিন। এতে করে চোখের নিচের ফ্লুইড সরে যাবে এবং ফোলা ভাব দূর হবে।

একটু খেয়াল করলে কি না হয়। তাই না! রূপচর্চায় এতো কসরতের তো প্রয়োজন হয় না। কিছু জিনিস ঠিক থাকলে নিজের রূপ সৌন্দর্য নিয়ে আর ভাবতেই হবে না আপনাকে।


আরোও সংবাদ