রিমাকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগে আটক ২

প্রকাশ:| বুধবার, ২৪ সেপ্টেম্বর , ২০১৪ সময় ০৮:১৪ অপরাহ্ণ

নববিাহিত রিমা হত্যাশফিউল আলম, রাউজান ঃ রাউজানের নোয়াজিশ পুরে নববিাহিত রিমাকে হত্যা করে ফাঁসীতে তার লাশ ঝুলিয়ে দিয়ে আর্ত্বহত্যা করেছে মর্মে এলাকায় প্রচারণা চালিয়েছে রিমার শ্বাশুরী ও জামাতা । গতকাল ২৪ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুরে এই ঘটনা সংগঠিত হয় । রাউজান উপজেলার চিকদাইর ইউনিয়নের চিকদাইর আবদুল জলিল সারাংয়ের বাড়ীর প্রবাসী আহম্মদ উল¬াহর কন্যা রিমা আকতার প্রকাশ রিমা (১৯) কে গত ৪ সেপ্টেম্বর একই উপজেলার নোয়াজিশ পুর ইউনিয়নের নোয়াজিশ পুর নকিব তালুকদার প্রবাসী আবু বক্কর বিবাহ করেন । বিবাহের সময় দুই লক্ষ সত্তর হাজার টাকা দিয়ে রিমার স্বামী আবু বক্করকে যৌতুক দেয় । বিবাহের পর স্বামী আবু বক্কর ও শ্বাশুরী সেলিনা আকতার দেবর ইব্রাহিম সব সময়ে রিমাকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করতো । গতকাল ১৪ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপরে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করে রিমাকে হতদ্যা করার পর রিমার লাশঁ তার শয়ন কক্ষের সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রিমার পরণের ওড়না দিয়ে । নিহত নব বিবাহিত গৃহবধূ রিমা আকতারের ভাই তৌহিদুল আলম বলেন বোনের বিবাহ হওয়ার পর থেকে স্বামী ও শ্বাশুরী প্রতিনিয়ত যৌতুকের জন্য নির্যাতন করতো । গতকাল বুধবার বোন রিমাকে হত্যা করে তার লাশঁ শয়ন কক্ষের সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রেখে আমার বোন আর্ত্বহত্যা করেছে বলে এলাকায় প্রচারনা চালাচ্ছেন । গত মঙ্গলবার নিহত গৃহবধু রিমার পিতা আহম্মদ উল¬াহ প্রবাস থেকে বাড়ীতে আসলে রিমাকে ফোন করে যাওয়ার জন্য বললে ও রিমার স্বামী ও শ্বাশুরী তাকে তার বাপের বাড়ীতে যেতে দেয়নি । গত মঙ্গলবার নিহত রিমা আকতারের বিবিএস পরিক্ষার ফলাফল বের হয় । পরিক্ষার ফলাফলে রিমা আকতার প্রথম শ্রেণীর পাশের গৌরব অর্জন করেন বলে জানান তার ভাই তৌহিদুল আলম । গৃহবধু রিমার শ্বাশুরী সেলিনা আকতার বলেন পুত্রবধু রিমা আকতার তার শয়ন কক্ষের দরজা ব›দ্ধ করে দিয়ে শয়ন কক্ষের সিুিলং ফ্যানের সাথে গলায় ওড়না দিয়ে আর্ত্বহত্যা করেছেন । ঘটনার বিষয়ে রাউজানের চিকদাইর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী দিদারুল আলম বলেন আমি চেয়ারম্যানের দায়িত্বপালন কালে অনেক লাশঁ দেেেখছি ফাসীঁতে ঝুলিয়ে আর্ত্বহত্যা করতে । রিমার শয়নকক্ষে রিমার ফাসীঁতে ঝুলানো লাশ দেখে মনে হয় রিমা আর্ত্বহত্যা করেনি । তাকে নির্যাতস করে হত্যা করে তার লাশঁ ফাসীঁতে ঝুলিয়ে রেখেছে । ঘটনার সংবাদ পেয়ে রাউজান থানার এস আই খলিল ঘটনাস্থলে গিয়ে রিমার লাশঁ উদ্বার করেন । ময়না তদন্দের জন্য রিমার লাশঁ মর্গে পাঠানোর ব্যবস্থা করছেন বলে জানান এস আই খলিল । ঘটনার ব্যাপারে রাউজান থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশঁ বলেন ঘটনাস্থল থেকে রিমার লাশঁ উদ্ধার করা হয়েছে রিমা কি আত্বহত্যা করেছে না তাকে হত্যা করেছে তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি ময়না তদন্তের পর তা নিশ্চিত হওয়া যাবে ঘটনার পর রিমার স্বামী আবু বক্করকে আটক করেছেন পুলিশ । নব বিবাহিত গৃহবধু রিমা আকতারের হত্যার ঘটনার ব্যাপরে মামলার প্রক্রিয় চলছে ।