রাস্তায় গাড়ি নেই: খালি পায়ে হাটছে মানুষ

প্রকাশ:| শনিবার, ১৬ জুলাই , ২০১৬ সময় ০৯:৩৬ অপরাহ্ণ

নগরীর গোলাম রসুল মার্কেটের চিত্র

নগরীর গোলাম রসুল মার্কেটের চিত্র

রাত নটায় মুরাদপুর-তসলিম খা

রাত নটায় মুরাদপুর-তসলিম খা

বন্দর নগরী চট্টগ্রামের চির চেনা দূর্ভোগ ট্র্যাফিক জ্যাম। তার সাথে যোগ হয়েছে জলবদ্ধতা। ঘন্টা খানেকের  বৃষ্টিতেই রাস্তা হয়ে ফুটপাতে উপচে পরে নর্দমার নোংরা পানি। যা নগরবাসীর জন্য চরম দূর্ভোগের কারণ।

শনিবার সন্ধ্যায় বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় নগরের অনেক গুরুত্ব্পূর্ন পয়েন্টের রাস্তা। সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, রাস্তার মাঝ খানে অনেক জায়গায় ম্যানহোলের ঢাকনা খোলা থাকায় বাশের খোটা দিয়ে বিপদ সংকেত স্থাপন করেছেন স্থানীয়রা।

অপরদিকে কিছু কিছু জায়গায় সিটি কর্পোরেশন ও অন্যান্য উন্নয়ন সংস্থা গুলোর রাস্তায় সংস্কার কাজের অর্ধ সমাপ্তিতার কারণে ড্রেনেজ সিস্টেম অকার্যকর হয়ে জলবদ্ধতার সৃষ্টি করেছে। যার কারণে জনদূর্ভোগ চরম থেকে চরমে উঠেছে। বহদ্দারহাট, মুরাদপুর, চকবাজার, ২ নং গেইট, পাঁচলাইশ বেশ কিছু এলাকা সহ নগরের ভিবিন্ন ব্যস্ততম এলাকা গুলোতে দেখা যার দূর্ভোগের এই চিত্র।

সন্ধ্যায় নগরীর পাঁচলাইশ ও বহদ্দারহাট মোড়ে দেখা যায় অফিস ফেরত মানুষের দূর্ভোগের চিত্র, বৃষ্টির পানি ও রাস্তার ময়লা মিশে তৈরি হয়ছে এক অস্বাস্থকর পরিবেশ। এক প্রকার বাধ্য হয়েই জুতা হাতে নিয়ে নোংরা পানিতেই রাস্তা পার হতে দেখা যায় অনেককে। এমনি একজন পথচারী যিনি খালি পায়ে হাটছিলেন। নাম জানতে চাইলে জানান অভিলাষ শুভেচ্ছা, নিউজচিটাগং২৪.কম’র প্রতিবেদকের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ‘কি আর করবো বাসায় তো যেতে হবে। বৃষ্টির পবিত্র পানি রাস্তায় এসে অপবিত্র হয়েছে। একদিকে রাস্তায় জ্যাম অন্যদিকে নোংরা পানি থৈ-থৈ করছে। আমি মনেকরি নগর কর্তাদের আরো একটু সু-দৃষ্টি দেওয়া উচিৎ’।

সূত্র জানায়, বৃষ্টির কারণে ‍নগরীর আগ্রাবাদ, বিমানবন্দর সড়ক, প্রবর্ত্তক মোড়, মুরাদপুর, ২ নম্বর গেট, চকবাজার, কাপাসগোলাসহ বিভিন্ন এলাকা কোমর সমান পানিতে ডুবে গেছে।

তবে বৃষ্টিপাতের কারণে চট্টগ্রামের নিম্মাঞ্চল পানির নিচে নিমজ্জিত হলেও আবহাওয়া অফিস বলছে সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত মাত্র ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছে।


আরোও সংবাদ