রাস্তার দু’পাশে বৃক্ষ লাগানো হলে চট্টগ্রাম বৃক্ষের বেষ্টনীতে পরিনত হবে

প্রকাশ:| রবিবার, ৮ জুন , ২০১৪ সময় ০৮:৩৪ অপরাহ্ণ

রাস্তার দু’পাশে বৃক্ষ লাগানো হলে চট্টগ্রাম বৃক্ষের বেষ্টনীতে পরিনত হবে নগর বিএনপি’র সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, নগরীর ৬০বর্গমাইল এলাকায় রাস্তার দু’পাশে বৃক্ষ লাগানো হলে চট্টগ্রাম বৃক্ষের বেষ্টনীতে পরিনত হবে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বার্ষিক বাজেটে ১ ভাগ অর্থ বৃক্ষরোপনের জন্য বরাদ্দ রাখার আহবান জানান তিনি। গাছ লাগানো ও বাগান করার শর্তে বাড়ির প্ল্যান পাস করার জন্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে পরামর্শ দেন।

রোববার বিকেলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন আয়োজিত আউটার স্টেডিয়ামে মাসব্যাপী বৃক্ষমেলা মঞ্চের আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। সিটি মেয়র এম মনজুর আলমের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. হাসান মাহমুদ, সাংবাদিক জাহেদুল করিম কচি, কাউন্সিলর নিয়াজ মোহাম্মদ খান, হাজী বাবুল হক, দিদারুর রহমান লাভু, হাসান মুরাদ ও মনোয়ারা বেগম মণি। স্বাগত বক্তব্য রাখেন চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আলী আহমেদ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী, মোহ্ম্মাদ আজম, ইসমাইল বালি, আরজু শাহাবুদ্দিন, এম এ আজিজ ও ফাতেমা বাদশা।

সাবেক বাণিজ্য মন্ত্রী আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, পরিবেশ সু-রক্ষায় বৃক্ষের কোন বিকল্প নেই। অর্থনীতি, রাজনীতি ও উন্নয়ন সবকিছুই পরিবেশের উপর নির্ভরশীল। জীবন-যাপন পরিবেশের উপর নির্ভরশীল। জলবায়ুর প্রভাবে প্রকৃতি আজ বিপন্ন।

তিনি বলেন, বৃক্ষের প্রেম সবাইকে ধারন করতে হবে। নির্বাচিত প্রতিষ্ঠান গুলোর জনপ্রতিনিধিরা সকলে বৃক্ষের প্রেমে আসক্ত হলে প্রকৃতির পরিবেশ উন্নত হবে। আগামী প্রজন্মের জন্য বিশ্বকে আবাসযোগ্য রাখার জন্য বৃক্ষরোপনে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন।

সিটি মেয়র এম মনজুর আলম বলেন, ২০১৪-২০১৫ অর্থ বছরের বাজেটে বৃক্ষরোপন ও পরিচর্যার জন্য ১০ লাখ টাকা বরাদ্দ রাখা হবে। দালানের ছাদে বাগান করা ও পরিচর্যার জন্য নির্বাচিত কাউন্সিলরদের মাধ্যমে প্রনোদনা দেয়া হবে।

মেয়র বলেন, রাস্তার দু’পাশে বনজ ঔষধ ও ফলজ গাছ লাগানো হবে।

অধ্যাপক ড. হাসান মাহমুদ বলেন, প্রত্যেক ধর্মে উদ্ভিদ ও বৃক্ষের কথা বলা হয়েছে। পবিত্র কোরআনের বহু জায়গায় বৃক্ষের বর্ণনা দেয়া হয়েছে। প্রাকৃতিক ভারসাম্যের জন্য সবুজকে বাঁচাতে হবে। ‘অধিক বৃক্ষ অধিক সমৃদ্ধ’ এ শ্লোগানকে বাস্তবে রুপ দিতে হবে। তিনি সামাজিক বনায়নের উপর জোর দেন এবং ছাত্রদের বৃক্ষ প্রেমিক হওয়ার পরামর্শ দেন।