রাতের অন্ধকারে মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুর

প্রকাশ:| রবিবার, ৪ ডিসেম্বর , ২০১৬ সময় ১০:২৩ অপরাহ্ণ

ভূজপুর প্রতিনিধি:
%e0%a6%ad%e0%a7%82%e0%a6%9c%e0%a6%aa%e0%a7%81%e0%a6%b0%e0%a7%87-%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%85%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a7%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%87-%e0%a6%aeভূজপুরে সার্বজনীন বাসন্তী দূর্গা বাড়ী মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুরের করেছে দূর্বৃত্তরা। শনিবার রাতের ফটিকছড়ি উপজেলার পশ্চিম ভূজপুর গ্রামের সেন বাড়ীর সার্বজনীন বাসন্তী দূর্গা মন্দিরের এ ঘটনা ঘটে। গতকাল (৪ ডিসেম্বর) সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট উত্তম কুমার মহাজনসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিরা।
ওই সেন বাড়ীর নৈশ পহরী স্বপন সিকদার বাদী ভূজপুর থানায় একটি এজহার দাখিল করেন। ভূজপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছেন।
জানাগেছে, ১০ গন্ডা জায়গার উপর সেন বাড়ী সংলগ্ন পুকুর পাড়ে ওই মন্দিরটি অবস্থিত। মন্দিরের মধ্যে ৭টি প্রতিমা ছিল। শনিবার দিনগত রাত আনুমানিক ১১ টার পর দূর্বৃত্তরা মন্দিরের প্রতিমাই ভাংচুর করে। কে বা কারা এ ঘটনা করেছে তার কিছুই অনুমান করতে পারছেন না কেউ।
স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের সাথে কথা হলে তারা বলেন, মন্দিরের আশপাশের মুসলিম সম্প্রদায়ের সাথে তাদের অত্যন্ত বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। পাশাপাশি হিন্দু মুসলিম অবস্থান করলেও তাদের মধ্যে কোন রকম বিরোধ নাই। কারা এ ঘটনা করছে তারা কেউ অনুমান করতে পারছেন না।
জানতে চাইলে ভূজপুর থানা পূজা পরিষদের সভাপতি বাবুল দে জানান, মন্দিরের ৭টি প্রতিমাই ভাংচুর করে দূর্বৃত্তরা। কে বা কারা এ ঘটনা করেছে তারা কিছুই অনুমান করতে পারছেন না বলে তিনি জানিয়েছেন।
ওই এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তি সেন বাড়ীর এস.কে সেন জানান, ১০ গন্ডা জায়গার উপর মন্দিরটি। শুনেছি ৫টি প্রতিমা ভাংচুর করেছে দূর্বৃত্তরা। তিনি সম্প্রদায়িক কোন কিছু নই বলে জানান।
জানতে চাইলে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট উত্তম কুমার মহাজন বলেন, কে বা কারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে। এটি কোন সম্প্রদায়িক বিষয় না। তদন্ত সাপেক্ষে সব কিছু পরিস্কার হবে।
এ ব্যাপারে ভূজপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুল লতিফের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, রাতের অন্ধকারে দূর্বৃত্তরা ঘটনা ঘটিয়েছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছি। থানায় এজহার হয়েছে দোষীরা কেউ পার পাবেনা বলে তিনি জানিয়েছেন।