রাজস্ব আদায় ১৮ কোটি ৯৩ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬৮ টাকা বেশি

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারি , ২০১৭ সময় ১১:০২ অপরাহ্ণ

দেশের প্রধান রাজস্ব আদায়কারী প্রতিষ্ঠান চট্টগ্রাম কাস্টমসের অডিট ইনভেন্টিগেশন এন্ড রিসার্চ (এআইআর) শাখায় ২০১৫ সালে ৮৬০ মামলার বিপরীতে অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় হয়েছিল ৩৭ কোটি ৭৩ লাখ ৪০ হাজার ৫০১ টাকা।

সদ্য সমাপ্ত ২০১৬ সালে মামলার সংখ্যা ১৬টি কমলেও অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় বেড়েছে ১৮ কোটি ৯৩ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬৮ টাকা। যা ২০১৫ সালের তুলনায় ১৮ কোটি ৯৩ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬৮ টাকা বেশি।

কাস্টমস কর্মকর্তারা বলছেন, জালিয়াতি রোধে নজরদারি বৃদ্ধি, জালিয়াতির ঘটনা উদঘাটন ও জালিয়াতির মাধ্যমে পণ্য খালাস কমে যাওয়ার কারণে অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় বেড়েছে। যা সামগ্রিক লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের এআইআর শাখা সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালে ১২ মাসের ৭৪৩টি সাধারণ মামলায় ৫০ কোটি ৩৮ লাখ ৯৫ হাজার ৯৬৩ এবং ১০১টি জিপি শিট মামলায় ৬ কোটি ২৭ লাখ ৯৮ হাজার ১০৫ টাকা আদায় করা হয়।

চট্টগ্রাম কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার মুহাম্মদ রইচ উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, ক্লাস্টার পদ্ধতি অনুসরণ করে জালিয়াতি, বিভিন্ন চালানে বড় ধরনের রাজস্ব ফাঁকি রোধ এবং নজরদারি বৃদ্ধির কারণে ২০১৬ সালে অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় বেড়েছে।

অতিরিক্ত রাজস্ব আদায়ের চেয়ে জালিয়াতি রোধে এআইআর শাখা নজর দেয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, নজরদারি বাড়ানোর ফলে জালিয়াতির ঘটনা কমে যায়। এছাড়া চালান আটক করে কয়েকগুণ জরিমানা করার কারণে রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করে। ফলে কাস্টমসের সব শাখায় রাজস্ব আদায় বেড়ে যায়।

সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে সাধারণ ও জিপি শিটের ৯৬টি মামলায় ১৩ কোটি ৬৪ লাখ ৫৪ হাজার ৭৩০ টাকা অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় করা হয়। ফেব্রুয়ারিতে ৬৮ মামলার বিপরীতে ২ কোটি ৭৩ লাখ ৪১ হাজার ৪৪৮ টাকা, মার্চে ৫১ মামলায় ৪ কোটি ৬৩ লাখ ৫০ হাজার ৯৭৩, এপ্রিলে ১২৪ মামলায় ২ কোটি ৫৫ লাখ ৫৩ হাজার ৬০০, মে মাসে ১১৮ মামলায় ৫ মোটি ৮৮ লাখ ৭৬ হাজার ১৭৮, জুনে ১০২ মামলায় ২ কোটি ৬৩ লাখ ৫৪ হাজার ৭৫৪ টাকা আদায় করা হয়।

জুলাই মাসে ৪০ মামলায় ১ কোটি ২৩ লাখ ৪৮ হাজার ৫৪৬ টাকা, আগস্টে ৪৪ মামলায় ৫ কোটি ৯২ লাখ ৪০৭, সেপ্টেম্বরে ২৭ মামলায় ৫ কোটি ২৯ লাখ ৭২ হাজার ১৯২, অক্টোবরে ৪১ মামলায় ২ কোটি ৯১ লাখ ৭৯ হাজার ৯৩৫ টাকা, নভেম্বরে ৬০ মামলায় ৫ কোটি ১১ লাখ ৬৭ হাজার ৭৯২ এবং ডিসেম্বর মাসে ৭৩ মামলায় ৪ কোটি ৩৮ লাখ ৯৩ হাজার ৫০৯ টাকা আদায় করে এআইআর শাখা।